অন্যচোখে ও অসমাপ্ত অসুখ

ফেরদৌস নাহার
কবিতা
Bengali
অন্যচোখে ও অসমাপ্ত অসুখ

ধাঁধা ধরা দিন শেষ হলে উড়িয়ে রঙিন পাল ভেসে যায় ঘূর্ণিনাচের দেহবাঁক

অন্যচোখে

একদিন সে আমার চোখের মণি ছিঁড়ে নিয়ে বলেছিল-
এইবার লাগাব নিজের চোখে
দেখি তোকে দেখতে পারি কিনা তোর মতো করে
ছন্নছাড়া বাতাসের বিমনা সাঁতার রক্তের বাঁক ভুলে
চলে গেল অন্যপথে

রাতদিন গান গায় ধুলোর পাখি
চোখ গেল! চোখ গেল!! চিৎকারে
উন্মাদ চাঁদমারি ডুব দিল পুরাতন ক্রোধে
ভাষা নাই, ওরে পথ ভুলে ভুলে চলে গেলি অনার্য স্টেশনে
তোরও কি যাবার কথা ছিল মণিখোর চোখের অতলে
একবার বাঁক ফিরে দেখ

অসমাপ্ত অসুখ

ভুলে থাকা একটি অসমাপ্ত অসুখ
কখনই পুরোপুরি ভুলে যাওয়া হয় নারে
মেধার গহবরে অনেক ফোস্কা পড়েছে
মাঝে মাঝে জল ঠেলে অশ্রু ভাসে
আশঙ্কায় চমকে উঠি
আগামীকাল না জানি কে এসে
নিয়ে যাবে চিকিৎসার দেশে! তারপর
আড়ালে খুব করে একটি কী দুইটি
জুতসই গাল দেবে কষে

এসবের কোনো কিছুই চাই নারে ভাই, তারচেয়ে
অসমাপ্ত অসুখেই থেকে যেতে চাই

তুইও ভালো থাকিস, যাই

ফেরদৌস নাহার। কবি।

এই বিভাগের অন্যান্য লেখাসমূহ

কবুতর

কবুতর

অগ্নিকাণ্ড আমার চৌহদ্দিতে ধ্বংসস্তুপের ভীড় পুনর্বার নুয়ে পড়া অতীতের তীর জীবনের মাঝপথে রেখে যায় সম্পর্কের…..