অমৃতমন্থন

অনুশ্রী তরফদার
কবিতা
Bengali
অমৃতমন্থন
ছোবল
আস্তিনের সাপটি বারবার ছোবল মারে
বিষ নেই, দগদগে ক্ষত, দাগ থেকে যায়।
পথ-অনাথ সারমেয় শাবক- আদরে পরিবার বড়ো হয়, অপুষ্টির শরীর লোমশ নাদুস-নুদুস, শেষ সাইকেলের ঘন্টির শব্দ, অপেক্ষায় দুয়ারে অতন্দ্র প্রহরী।
ভালোবাসাতে ভালো বাসা হলেও, দুই হাড়িতে গরমভাত ফোটে! ফ‍্যান পড়ে পিছল নদী, অসমর্থ দেহে হামাগুড়ি,
কাছের মানুষ দোরে খিল দিয়ে।
অমৃতমন্থন
চাকভাঙা তরলের মিষ্টি অনাস্বাদেয় অমৃত মনে হয়, ইন্দ্রিয় গরম হলে জ্বরভাব- সুখে আলসে নিদ্রা। বরফথলে বা জলকাপড়ের ছোঁয়া রবাহুত অতিথি, ক্রোধে উষ্ণজন্ম।
অভিমানী রাত, মেহগনির ডালে শাবক নিরাপত্তায় ডানা মেলে বসে মা। হিসহিস, বাকলে-খোলসে ঘষাঘষি! গাঢ় হয় ভয়। ক্ষুধার্ত ময়াল নিঃশব্দে চরাই, অস্পষ্ট রাকার আলো আভাস দিতে দিতে- সমর্পনের গল্প।
বিষ নেই! নিঃশ্বাসে নিঃশেষ বংশ।
মধুশালা নির্মাণেও শিল্প, শিল্পে আঘাত! বিষ ঢালে প্রতিবাদী মধুকর, দুঃখে। ‘যন্ত্রণা’ মৌয়াল সীমাহীন অসীমে কাতরে কাতরে উপশম পিপাসী, নীরব অস্থির সাতজোড়া চোখ। খিদে নিষ্ঠুর শিল্প, চাকভাঙা কৌশলী যুদ্ধ শেখে।
‘খিদে-বিষ-অমৃত’ তিনমূর্তি-  বিনিসুতোয় হার মানা হারের রূপকথা।
রঙ্গমঞ্চে অমৃতমন্থন চিত্রনাট্য।

অনুশ্রী তরফদার। কবি ও সম্পাদক। জন্ম ভারতের পশ্চিমবঙ্গরাজ্যের শিলিগুড়ি। দ্রোহকাল নামক ছোট কাগজ সম্পাদনা করেন।

এই বিভাগের অন্যান্য লেখাসমূহ