অয়ন্ত ইমরুলের কবিতা

অয়ন্ত ইমরুল
কবিতা
Bengali
অয়ন্ত ইমরুলের কবিতা

রিড ভাবছে আঙুল

রিড ভাবছে আঙুল
সুর টেনে তুলছে কবেকার
পাথুরে ঠোঁট
করুণ এক ক্যানভাসার
শনি থেকে মঙ্গলে দৌড় করাচ্ছে
ধূলশুরার হাটবার
গাঁথায় যাচ্ছে সুঁচের চোখ, সুঁচের ডগা

দাদার ফিরতি সন্ধ্যায়
কিছু কচিকাঁচার ফড়িং কদমায়
জমিয়ে রাখছে ঘন শিহরণ
জোছনা করছে আকাশ
দূরের পুঁথিঘরে সাতকন্যার বিয়ে
সাতমহলা বাড়ি
ঢুলুঢুলু ঢলে পড়লে আয় আয় চাঁদমামা
খুব কাছের মায়ের মুখের মিহির।

 

দুই.

চুনকাম করা দেয়ালে ঘুম আঁকছি
গ্রীবার নির্জনে এখনো অলিভ সন্ধে
সন্ধে থেকেই চাঁদ শুনছি
টলে ঢলে পড়তেই
মেয়েটা এলার্ম হয়ে উঠছে
ঈশ্বরকেই জাগিয়ে তুলছে গানের খেয়ালে
কতদূর উপায়
চাঁদ খোলে এপ্রোন
না ফেলা চোখের পাতা
তোমাকে রূপের পশলায় নাচাবে।

 

তিন.

মাছ গন্ধের জল বলি
চাঙা মিউ মিউ
রূপচাঁদা করা বাগ পাই প্রতিবেশী
কত পুরানা
গানে গানে আঁশটে গন্ধ
গানে গানে অনেক কোটা চাই
পিঁড়ির হুলো চাই

যেনো বঁটির বাসে না ফোটে একা
তার একতারা
ফিরে ফিরে খমক
ফিরে ফিরে ডমকি
লেহনের তৃষ্ণা বড় হচ্ছে যখন
কলে কব্জায় নামুক নখের ডলক।

 

অয়ন্ত ইমরুল। কবি। জন্ম ১৯৮৭ সালে বাংলাদেশের সাভার। প্রকাশিত বই: 'ছায়া সমুদ্র' (কাব্যগ্রন্থ, ২০১৬), 'বুদ্ধের ভায়োলিন' (কাব্যগ্রন্থ, ২০১৮), 'সাদা ধূলির দূরত্বে' (কাব্যগ্রন্থ, ২০২০), 'স্বৈর হাওয়ার হরিণী'  (কাব্যগ্রন্থ, ২০২০) এবং 'কিসমত আলী অথবা শূন্য' (গল্পগ্রন্থ, ২০২০)।

এই বিভাগের অন্যান্য লেখাসমূহ

কবুতর

কবুতর

অগ্নিকাণ্ড আমার চৌহদ্দিতে ধ্বংসস্তুপের ভীড় পুনর্বার নুয়ে পড়া অতীতের তীর জীবনের মাঝপথে রেখে যায় সম্পর্কের…..