আক্ষেপ

শারমিন সুলতানা রীনা
কবিতা
Bengali
আক্ষেপ

আক্ষেপ

সমুদ্রের গভীরতা মাপতে গিয়ে
আকন্ঠ তৃষ্ণায় মরি।
যেমন হাতের কাছে ভরা কলস থেকেও
লালন মরে বার বার।

যতটা তৃষ্ণা মেটায় জল
ভাসায় তার চেয়ে বেশী।
মানুষের আহাজারীতে কাতর বাতাসের শরীর।
তবু মেটেনা জলের সাধ বিভৎস খেলার

তুমিও ঠিক ভাসিয়ে নিয়ে গেলে
আকাংখার সোনালী ফসল।
কেড়ে নিলে ঘুম, রাতের স্বপ্ন।
অথচ আঁধারের সাথে আপোসে
নিমগ্ন হও নিজেই তুমি।

ঘুমের সাথে ছিলনা শত্রুতা,
তবু কোন জন্মের এতো ক্রোধ?

ঘুমের চিরকূট হারিয়ে এক বিষন্ন স্বপ্নের পানে
ছুটে যাই।

অবশেষে এক তুমুল ভাঙ্গন বয়ে ফিরে আসতে আসতে
হৃদয়ের ক্যানভাসে ভেসে ওঠে এক নারী মূর্তি।
যমুনায় ভাসে যার দীর্ঘ কালো চুল

আর কতকাল রাই বিনোদীনি হবো?

সহযাত্রী

বালুচর ভেবে চোরাবালিতে
গহীণের ডাক শুনি
অতলে তলিয়ে তবু তোর প্রেমের
নকশি-কাঁথা বুনি।
যতো সহজে ভালোবাসা যায়
হওয়া যায় স্বপ্নবান
ততো সহজে দুইটি দেহ
হয়না একটি প্রাণ।
যে তুই আমার নিভৃত প্রেম
নিভৃত কথার বাণী
পথ না ভুলিস পথিক প্রবর
তাই পাতি হৃদয়খানি।
দেবী নই আমি কেবলি মানুষ
বুকে বিরহ রাত্রি
আলোহীন পথে একা চলি তাই
সাথে নেই সহযাত্রী।।।।

উল্কাপাত

তোমাকে ছুঁয়ে যেতে
ইচ্ছেদের যখন খুব বেশী বাড়াবাড়ি
আমার জোটেনা তখন কিছুই।

বসন্তের রক্তিম আভায়
তোমার নির্জনতায় খুঁজি আশ্রয়
তুমি তখন উওরী বাতাসে উড়িয়ে দাও।

একটু মানবিক প্রেম ও পরশের কাছে
কতটা তৃষ্ণার্ত হলে কেউ
গড়ে তোলে শূন্যেই ঘর সংসার।

সেই কবে হারিয়েছি ভাষা,
হারিয়েছি কারুকাজ।

মাটির শরীর তবু মাটির কাছেই
পেতে চায় আজন্ম লালিত সাধ।

আকাশ কি রাখে মনে,
অঙ্গন থেকে কখন ঘটে
কোন উল্কাপাত?

চিতা

তোমাকে ভালবেসে তুলে নেবো গন্ধম

ঝরা জোসনায়, অমাবশ্যার অন্ধকারের মতো
মাতাল হবো।

পানের শেষ বিন্দু পর্যন্ত
ছুঁয়ে যাবে অধরে অধর।

ভেঙ্গে যাক নক্ষত্রের গ্লাস
কাঁচে রক্তাক্ত হোক
সাজানো বাসর।

ঘুমে ঢলে পড়ুক আকাশ।

তোমার অগ্নি চোখ হোক
আমার চিতা।।

গল্প কথা

রাতের শরীর জুড়ে নেমে আসা
তিমির অন্ধকারের মতো
যেমন কোন সত্য নেই
এ সত্যের মতোই কোন কোন গল্প-কথারাও
হারিয়ে যায় কালের গর্ভে।
স্বেচ্ছায় বেছে নেয় মৃত্যুর সুরা পান করে
আত্মহুতির পথ।

মহাকাল বড় অদ্ভুত বিচারক তুমি
কী অবলীলায় ঝেড়ে ফেলো
সমস্ত দায়বদ্ধতা।
যখন হৃদয় তার দুলে ওঠে
পালতোলা নায়ের মতো
দু’চোখে স্বপ্ন ছিটিয়ে কেউ একজন
বিষমাখা ঠোঁটে চুম্বনের নামে
দিয়ে যায় ছোবল।
ঘোলা জলে ভাসে আকাঙ্ক্ষার লাশ।

লাশের শরীর নিয়ে গল্পরা বাঁচার আশায়
ফিরে আসে মর্ত্যে বিষের নহর বয়ে।
তরুণ বেদে শুধু একবার মন্ত্র দিয়ে তুলে নাও
রক্তনালী থেকে সাপের বিষ।।

শারমিন সুলতানা রীনা। কবি ও ছড়াকার। জন্ম বাংলাদেশের গোপালগঞ্জ জেলায়, বর্তমান নিবাস ঢাকা। প্রকাশিত বই: 'মুজিব মানে বাংলাদেশ' (ছড়া, ২০২১), 'মা এক পৃথিবী' ((ছড়া, ২০১২), 'আমার কেবল ইচ্ছে করে' (ছড়া, ২০১৬), 'চড়ুই পাখির ছানা' (ছড়া, ২০১৫), 'বাবা আমার বাবা' (ছড়া,...

এই বিভাগের অন্যান্য লেখাসমূহ

প্রতিভাস

প্রতিভাস

স্পষ্টতা অন্ধকারের মতো স্পষ্টতা আলোর মধ্যগগনে নেই। উত্তাপে ঝলসে যাওয়া চোখে শীতলপাটি বিছিয়ে দেয় রাত…..

চিঠি

ক্ষোভ রোদের দোকানি হয়ে, ছুঁয়ে গ্যাছি দূর পরবাস আলোর ক্রেতারা দেখে, শূন্য ঝুলি খালি সর্বনাশ।…..