আলো ও অন্ধকার

বিধান জানা
কবিতা
Bengali
আলো ও অন্ধকার

আলো ও অন্ধকার

উঠোনে সকাল পড়ে আছে কিছু দূরে
আবছায়া মেঘ কথা বলে চুপি চুপি
রোদের কণারা ছড়িয়ে ছিটিয়ে বসে
মালা গেঁথে যায় অচেনা সে বহুরূপী

রাতের তারারা ঘুমিয়ে পড়েছে ভোরে
স্বপ্নেরা খেলে তোর গাঢ় ঘুম চোখে
শব্দেরা কোন শব্দটুকু না করে
কবিতায় শোয় তোর বুকে মুখ রেখে

অজানার দিকে ভেসে যাই একা একা
রাত পুড়ে যাবে কোথায় থাকে সে আলো
তোর ওষ্ঠ-প্রদীপে নতুন সকাল হোক
অন্ধকারেই আমার থাকাটা ভালো ।

 

দেখা হবে

এরপর আমাদের অনেকবারই দেখা হবে
এমনি কাজের কথা হবে অনেক
কিন্তু আর কোন কথাই হবেনা

দিনের পর দিন এভাবেই দেখা হবে বার বার
হঠাৎ করে বৃষ্টির ফোঁটার মত অভিমান
ঠোঁটের ওপর টলটল করবে কোন কোন দিন

ছেলেমেয়েদের দুরন্তপনার কথা হবে
স্কুল কলেজের কথা হবে
ঘরে বাইরে ঝামেলা অশান্তির কথা
উঠে আসবে কথায় কথায়

টেবিলের দুইপ্রান্তে দু’জনের মাঝখানে
একটা অনন্ত আকাশ ভেসে থাকবে জানি
হয়তো হঠাৎ বিদ্যুৎ চমকের মত গভীর দুটি চোখ তুলে
মাঝে মাঝেই পরীক্ষা নেবে অন্য দুই তৃষ্ণার্ত তারার

তারপর একদিন টেবিলটাই ডানা মেলে উড়ে যাবে দূরে
দেখা আর হবে না কখনো
কোনদিন সেইকথা বলাও হবেনা আর ।

 

কাজল

ভেঙেচুরে পড়েছে শহর
ফুটপাতে ক্রন্দসী মেঘ
সূর্যের ছায়া পড়ে চোখে
ছাইচাপা কান্না অনেক

তবু ফোটে জ্যোৎস্নার ফুল
রাত্রি ভেজানো চুলে দেখি
জেগে আছে ওই মুখখানি
আঁধারেই চোখে চোখ রাখি

ভেসে যায় সময়ের স্রোত
ভীষন লাজুক তুমি জানি
হৃদিদেশ কেঁপে কেঁপে ওঠে
আজ তুমি কাজল পরোনি।

 

চুমু

না খাওয়া চুমুতে এত স্বাদ
না খেয়েই করেছিস ভালো
তবু, খেলে হত কি প্রমাদ
উজ্জ্বল হত না কি আলো ?

রোজ রোজ বলিনি তো মোটে
যদিও মিষ্টি খুব জানি
গন্ধরাজ কি রোজ ফোটে
না কি ঠোঁটে চুমু আশমানী ?

ঠোঁটের উপত্যকা জুড়ে
সারাদিন মনে মনে হাঁটি
পাপড়ির মত দুটি ঠোঁটে
জানি তোর চুমু খুব খাঁটি ।

বিধান জানা। কবি। জন্ম ১৯৬৯, ভারতের পশ্চিমবঙ্গের অবিভক্ত মেদিনীপুর জেলার তমলুকে (বর্তমানে পূর্ব মেদিনীপুর)। পেশাগত জীবনে তিনি সরকারি চাকুরে। গত দশবছর ধরে কবিতা লিখছেন।

এই বিভাগের অন্যান্য লেখাসমূহ

কবুতর

কবুতর

অগ্নিকাণ্ড আমার চৌহদ্দিতে ধ্বংসস্তুপের ভীড় পুনর্বার নুয়ে পড়া অতীতের তীর জীবনের মাঝপথে রেখে যায় সম্পর্কের…..