ইলশেগুঁড়ি

নারায়ণ প্রসাদ জানা
কবিতা
Bengali
ইলশেগুঁড়ি

একলা নদী

একলা বসি খেদ নদীর তীরে
যে অপগার দুঃখ ঝুলি ভরা
দু পাড়েতে ঘনিয়ে শুধু আঁধার
কেউ জানেনা কোন পাড়েতে সুখ।

একলা বারিৎ সঙ্গী আমি তার
সুখ খুঁজিনা কোনও কূলে আর,
একলা পত্রী শুকনো গাছের ডালে
নীড় ভাঙ্গা তার ; বাঁধেনা ঘর আর।

একলা বাহিনী বইছে একা ধীরে,
একটা আকাশ কালো শামিয়ানা
ঢাকছে যত দুঃখ-গল্প-কথা,
তার সাথেতে জাগছে রাতের তারা
ধুনীর জলে দুঃখের ছবি আঁকা।

 

তোমার শুভাকাঙ্ক্ষী

কাউকে দেওয়ার মত কিছু ছিলনা আমার
শুধু কিছু মধুর ভাষণ,-
ভালো থেকো -শুভেচ্ছা নিও।
গাছ লাগাতে গেলে যেমন খুঁড়তে হয় মাটি
তেমনি করে স্বপ্নের অঙ্গন খুঁড়ি প্রতিদিন
মৌলির গভীর থেকে উঠে আসে উদক-গরদ,
সুতক-কাল যেন পাশাপাশি
হাঁটে কাঁধে কাঁধ রেখে,
গুপ্ত ধনের স্বপ্ন ; অলীক ছবি হয়ে ভাসে।
আটপৌরে -হাটুয়ার মত এ জীবন
সবাই উপহাস বিদ্রুপ করে।
কাউকে দেওয়ার মত কিছু ছিলনা আমার
শুধু কিছু মধুর ভাষণ,
ভালো থেকো…
তোমার শুভাকাঙ্ক্ষী।

 

ইলশেগুঁড়ি

ইলশেগুঁড়ি -ইলশেগুঁড়ি
তুই আমাকে ছুঁয়ে দিলি -ফু-মন্তর-ছু
কানামাছি তোর সাথে ,শৈশবের ঐ পুকুর ঘাটে
কাঁঠাল ছায়ায় একসাথে,
আমের কুসি কলাপাতায়
এক পাতে আমি আর তুই।

ইলশেগুঁড়ি -ইলশেগুঁড়ি
নদীর পাড়ে কাটুর-কুটুর
ঝাপসা বিকেল আবছা আলোয়
একসাথে ঘাসের বনে-
জড়িয়ে ধরে সোহাগী হলি তুই।
ইলশেগুঁড়ি -ইলশেগুঁড়ি
কোঁচড় ভোরে আনলি তুলে -হাসনুহানা
তোর খোঁপাতে বেঁধে দিলাম -কুন্দ-চাঁপা-জুঁই
আশমানি রঙ বদলে দিলি তুই।

ইলশেগুঁড়ি -ইলশেগুঁড়ি
তুই আমার বন্ধু হলি-তোর চোখেতে নীল সাগরের ঢেউ,
আমার গায়ের গন্ধ মেখে,
আঁধার রাতের জোছনা হয়ে
সুক সারির গল্প বলিস তুই।
ইলশেগুঁড়ি -ইলশেগুঁড়ি
চল আমরা ঘর বসাই; নিরুদ্দেশের পথে,
তেপান্তরের মাঠ পেরিয়ে-
নীল অআকাশের শেষ সীমানায়
ব‍্যঙ্গমা আর ব‍্যাঙ্গমিদের সাথে।
ইলশেগুঁড়ি -ইলশেগুঁড়ি
তুই আমাকে ছুঁয়ে দিলি-ফু-মন্তর-ফু।

 

কবি ও কবিতা

তুমি চলে যাওয়ার পর , পড়ে রইল কিছু স্মৃতি
মেডেল-মানপত্র-ছেঁড়া পান্ডুলিপি,
সাতভায়া পাখি গুলো রোজ এসে বসে কার্নিসে;
তোমার জানালা লেখার টেবিলে
উঁকি-ঝুঁকি দিয়ে যায় চলে।
কালি শুকিয়ে যাওয়া কলমটা
পেনদানিতে পড়ে অবহেলায় ,
ঝরে যাওয়া সাদা ফুলের মালার
সুতো টুকু অবশিষ্ট তোমার ছবিতে,
ঝুল-ধূলো জমে ম‍্যাড়ম‍্যাড়ে
শোলার ফুল গুলো ফ্লাওয়ারভাসে।
বুঝে উঠতে পারলামনা
তোমার চলে যাওয়া রিক্ত করেছে কবিতাকে
না , – কবিতা তোমাকে?

নারায়ণ প্রসাদ জানা। কবি। প্রকাশিত বই: 'হঠাৎ যখন বৃষ্টি নামে' (কাব্যগ্রন্থ), 'অনুভব' (কাব্যগ্রন্থ)।

এই বিভাগের অন্যান্য লেখাসমূহ

কবুতর

কবুতর

অগ্নিকাণ্ড আমার চৌহদ্দিতে ধ্বংসস্তুপের ভীড় পুনর্বার নুয়ে পড়া অতীতের তীর জীবনের মাঝপথে রেখে যায় সম্পর্কের…..