এক শিকড়হীনা নারীর আত্মানুসন্ধান

তপনকান্তি মুখার্জি
কবিতা
Bengali
এক শিকড়হীনা নারীর আত্মানুসন্ধান

এক শিকড়হীনা নারীর আত্মানুসন্ধান

মনের উপর পাষাণভার হা – ঘর বলেই ,
হৃদয় – পাড়ের ভাঙন মেশে হৃদয় – জলেই ।
গোত্র হারাই , নতুন গোত্রে ভেসে চলা ,
বাবার থেকে শ্বশুরবাড়ি শুধুই ঠেলা ।
পুরানো বন্ধু , পুরানো ঘর , অতীত সবই ,
নতুন করে আঁকড়ে ধরা নতুন ছবি ।
সারাজীবন খুঁজে চলা নিজের শিকড় ,
নিজের আধার , নিজের স্মৃতি , নিজের ঘর ।
খুঁজতে খুঁজতে কখন যেন সময় শেষ ,
নতুন চলা , নতুন জীবন , নতুন দেশ ।

 

সম্পর্কের পদাবলি

রাতের প্রার্থিত মুহূর্তে পায়ের শব্দে জেগে ওঠে
সম্পর্কের পদাবলি , হৃদয়ের তল ছুঁয়ে জল ওঠে
প্রেমের শেষ সোপানে । থইথই প্রত্যাশার আনাগোনা
চলে রাতভর । তারপর বৃষ্টি শেষে বিপর্যস্ত বিছানায়
ভালবাসার অ , আ , ক , খ এনে দেয় প্রত্যাশিত
ভোরঘুম , সুখস্বপ্ন কড়া নাড়ে বন্ধ দরজায় ।

 

দীপশিখা

হয়তো কোথাও গেছো , তাই দরজাটা হাট করে
খোলা । আমি বসে তোমার উঠোনে । তোমার
শূন্যতা মিশছে গহন আঁধারে । যেখানে হাত ধরে
নিয়ে যাবে সেখানেই চলে যাব আমি ।
আত্মখননের মুহূর্তে তুমিই তো বাতিহাতে
ফ্লোরেন্স নাইটিন্গেল ।

অনন্ত দৌড়

বিষাদাক্রান্ত মনটা গড়িয়ে পড়ল পাথরের মতো। হৃদয় জুড়ে আবার এক নতুন যুদ্ধের প্রস্তুতি
মন – হত্যার ক্রুশ কাঁধে নিয়ে আবার হাঁটতে হবে
আত্ম – প্রজ্জ্বলনের পথে । তোমার আহ্লাদী ,
আদেখলেপনা মনের বারান্দায় ঝুলছে আমার
যৌবনের মায়াভরা দিন । আমি ছুটছি তাকে
ধরতে । আমার হৃদয়ের ভাষ্য কি তুমি শুনতে পাচ্ছ ?

এই বিভাগের অন্যান্য লেখাসমূহ

কবুতর

কবুতর

অগ্নিকাণ্ড আমার চৌহদ্দিতে ধ্বংসস্তুপের ভীড় পুনর্বার নুয়ে পড়া অতীতের তীর জীবনের মাঝপথে রেখে যায় সম্পর্কের…..