কাকন রেজা’র একগুচ্ছ কবিতা

কাকন রেজা
কবিতা
Bengali
কাকন রেজা’র একগুচ্ছ কবিতা

দেখা

ডেকে যায় দিন, পথ বলে আয়
দেখা হবে তার সাথে দারুণ সন্ধ্যায়

অমানুষ

মানুষের কথা বলতে, অমানুষ হয়ে উঠো তুমি
দেবতা মানুষ নয় জানি, তবু তার পদচুমি…

দূর

চলো তোমাকে বুঝে ফেলি, কতটা দূর যেতে পারো
দেখো পায়ে পায়ে চলে গেছি একা আমি, বেশি তারো…

মাপ

চলো যাই, সময় কাটুক পুরাতন কফি কাপে
হারাই, যেভাবে হারায় ছায়ারা শরীরের মাপে

মিছিল

মাঝেমধ্যে ঘুড়ি হয়ে যাই, মেঘ আকাশের নীলে,
আকাশ বন্দি আজ, চাই মুক্তি ঘুড়িদের মিছিলে।

মুঠি

শব্দগুলো মুঠিবদ্ধ হয়, মুঠি উঠে আসে হাতে
হাত মিশে মিছিলের স্রোতে, প্রতিবাদে প্রতিঘাতে।

ঘুড়ি ও আকাশ বিষয়ক

আকাশ বন্ধ তো আজ
মন পবনের নাও,
কীভাবে উড়বে আবার
মন্ত্র সেই বলে যাও।
দুই
তোমাদের ওড়া শেষ হলো
আকাশ হয়েছে বন্ধ,
সন্ধ্যার আগে ঘরেতে ফিরো
পথে নামে কাটাস্কন্ধ।
তিন
ঘুড়িদের ওড়া বন্ধ হলো
মেঘেদের হবে কবে?
জবর দখল হয়েছে আকাশ
মাটিটাও বুঝি হবে!

 

ভাসান

চলো তো দেখি, ভেসে যায় কে সমুদ্রের টানে
সে কি জানে
ভাসান দেখতে গিয়ে গিয়েছি বিসর্জনে নিজে
সারাক্ষণ ভিজে
উঠে চোখ
সারাক্ষণ ভাসে ভাসানের শোক…

শহর

গহীনের থেকে ডাক আসে, কার ডাক
শহর জুড়ে থাকা শহুরে কাক…
সাত সকালে কে আর ডাকে
কাকের শহর, কাকেরাই মনে রাখে।

ধুলো ও কৃষ্ণচূড়া

আমি কেউ নই, সমুখের দৃশ্য বলে যায়
কৃষ্ণচূড়ার যে সারি পথের সাথে হারায়,
আমিও হারাই, পথের সাথে পথের ধুলো
বাউন্ডেলে পথিক নেই যার চাল ও চুলো;
কিংবা ধুলোরও অধিক ধুলো হতে পারি
মানুষ নই পথের কৃষ্ণচূড়া… সারি সারি।

স্মৃতি

আমার স্টিয়ারিংয়ে হাত, পাশের রিকশা ওড়ায় তাকে
সে ভুলে গেলেও দৃশ্যটা স্থায়ী, স্মৃতিতে ঠিক ধরে রাখে।
প্রতিদিন মোড়ে গাড়িটা আমার ভুলো মনে চলে আসে
প্রতিদিন স্মৃতিটা রিকশার খোঁজে প্রেস ক্লাব ভালোবাসে।

ভালো থাকার পুরাণ

আমিতো শহরে নেই কিংবা বাড়িতেও
খোঁজ নাও সব হাঁড়িতেও,
কেউ জানাবে না খোঁজ, নিজেরা জানে না বলে
এড়িয়ে যাবে ভীষণ কৌশলে।
দেখো আমি নেই, কবিতায়
হয়তো ছবিটায়
নেই,
দেখো তো ভাবতেই
গায়ে কাঁটা দেয় কিনা?
আমিহীনা
কেমন থাকো তুমি আর তারা
দেখো তো কতটা দিশেহারা
আমি নেই ভাবতেই!
আছি বাড়িতেই,
এখানো সময় আছে
এসো কাছে,
খুলে সব শৃঙ্খলিত কাল
চলো জ্বালি সম্পর্কের দারুণ মশাল।
জ্বালবে আলো
চলো সবাইকে জানাই, আমরা আছি ভালো…

কাকন রেজা। লেখক, প্রাবন্ধিক ও সাংবাদিক। জন্ম ১৯৬৮ খ্রিস্টাব্দের ৬ মার্চ, বাংলাদেশে, ঢাকার উত্তর শাহজাহানপুরে। তারুণ্যের দিনগুলো পাড়ি দিয়েছেন লেখকের নিজ জেলাশহর শেরপুরে। তাঁর বাবা মরহুম আব্দুর রেজ্জাক ছিলেন, একাধারে লেখক, সাংবাদিক ও রাজনীতিক। মা জাহানারা রেজ্জাক এক সময়ে ছিলেন...

এই বিভাগের অন্যান্য লেখাসমূহ

কবুতর

কবুতর

অগ্নিকাণ্ড আমার চৌহদ্দিতে ধ্বংসস্তুপের ভীড় পুনর্বার নুয়ে পড়া অতীতের তীর জীবনের মাঝপথে রেখে যায় সম্পর্কের…..