চোখে তবু

ওয়াহিদার হোসেন
কবিতা
Bengali
চোখে তবু

সততা

সততা গড়িয়ে যায়।রাত্রি নামে।
মশারীর অজস্র ফুটো দিয়ে ঢুকে পড়ে সন্দেহ

চতুদর্শীর চাঁদ চেনা গেলে
ঘোমটার অদূরে থাকে ল্যাম্পপোস্ট।

যে জমিন ছেড়ে এলাম।
যে জায়নামাজ
অশ্রুস্নাত রাত

মনে থেকে যাবে!

চোখে তবু

চোখে তবু ঘুম নামে।ক্লান্ত হয়।

শরীরেও থাকে যৌনতার ফাঁদ পাতা।
স্টেশন থেকে বহুদূরে

জেগে থেকে ঘুম আসেনা।
কোথাও যাওয়ার ছিলো

কোথাও পৌঁছনোর কথা ছিল

রাত এসে শুয়ে পড়ে পাশে।
ইন্ধন জোগায়।

আমার অনেক দূরে ভোর থেকে গেছে।

কথা ছিলো

যৌথ ফসল ফলানোর কথা ছিলো।
নিবিড় হয়ে উঠবে ধানখেত।
সোনালি আকাশের সঙ্গে জমিও।

অনেক প্রতিশ্রুতি জলে ভেসে যাবে
নির্বাচনোত্তর পৃথিবীতে

ভুল শব্দ ঢুকে পড়ে অভিধানে।

অনেক দিন আগে
খেলতে খেলতে
কালাই বাড়িতে ঘুমিয়ে পড়েছিলাম।

অনেক স্বপ্ন

অনেক স্বপ্ন এভাবে লীন হলো

ডুবে ভিজে ছিড়ে ফেড়ে উড়ে গেল।

মেঘের মধ্যে লুকিয়ে রাখা হল দোয়াত
চিঠি চাপাটি।

সাহিত্যের ছাত্ররা বান্ধবীদের নিয়ে বেড়াতে গেছে এক্সকার্সনে

এই অবসরে ঘামে ও জলে
সাজিয়ে তুলেছি ধানখেত।

ওয়াহিদার হোসেন। কবি। জন্ম ১৯৮৬, ভারতের পশ্চিমবঙ্গরাজ্যের আলিপুরদুয়ার জেলার দক্ষিণ খয়েরবাড়ি রাঙ্গালিবাজনায়। লেখাপড়া করেছেন ইংরেজি সাহিত্যে। পেশাগত জীবনে তিনি একজন শিক্ষক। চাকরি করছেন ডুয়ার্সের এক প্রত্যন্ত চা বাগানের প্রাথমিক স্কুলে। প্রকাশিত বই: 'মধ্যরাতের দোজখ যাপন' (কাব্যগ্রন্থ, ২০১৩) এবং 'পরিন্দা' (কাব্যগ্রন্থ,...

এই বিভাগের অন্যান্য লেখাসমূহ