ছবি-লা

স্বপন রায়
কবিতা
Bengali
ছবি-লা

ছবি-লা-১

এক নদীর নদী শিরদাঁড়ায়

ধরতক্তা রোদ মার-পেরেকের রোদরা
এবার সে আসবে টুপি,টিশার্ট,জীনস
সঙ্গে এই গানটা
মুন্নারু মুন্নারু

পিছলে গেল রোদের রঙ কিংশুক হয়ে আছে গেল সেই রোদেই
গিটারপেষা লোকটা টুং টাং
গলে যাচ্ছিল আখর বাখর সারা পিঠ
ছুকে ছুঁতে গিয়ে শিরদাঁড়াও

 

ছবি-লা-২

চোখের প্রভাব নিয়ে চলে গেল বিজিতময়াল এক বাঁক

একা একাই সেলাই করে
হিম আর স্টেবলের হাহাকার

পিচ পড়ে
একরাতের পাশফেরা চতুর্দশী ঢাবায় মিশে যায়
স্টপের ধাপ্পা তখনো
চোখে চোখে
পুলিশের নিস্বঃ হাসিতে

ছবি-লা-৩

যদি রাস্তা জানলে তো রাস্তাই জানলে

মন সে রকম নয়, মন এক উদাসী পারচমেন্ট ফর ফর করে ওড়ে
রাস্তার ধারে তৈরি তৈরি সব একারা
চা
সানগ্লাস ভদকা ক্রিম-ক্র্যাকার ওমলেট নেয়
নিয়ে বাস্কেটের কথা লেডি-বার্ড সাইকেলের কথায়
ফুল বা আপেলে যায়
নদীতে যায়
নদী বলে, হে রাস্তা
রাস্তা বলে, হে হে নদী

রাস্তা খুললে রাস্তাকে জানলে এবার নদী এবার শয়নাতীতা জল
জল
হো-গম্ভীর আরম্ভে এবার

ছবি-লা-৪

এমনই একটা দুপুর
ভাঙছে
খেলাধুলোয় অসতর্ক বাপ্পা আর মা রাখী রিমোট নিয়ে কথা বলছিল

কোথায় যেন মেঘ করেছে
বৃষ্টি
বৃষ্টিদুয়ার মা আর ছেলেকে এমনকি আচমকা এসে পড়া ফেরিওয়ালাকেও
কী যে করে দিল

ভাঙা
অনবরত দুপুরকে আশ্চর্যজনক বলা যাচ্ছে না
মেঘ করুণাঘন
পরে অনেকখানি রোদ, হবেহবে রোদ
রাখী ধরলে দুষ্টু
বাপ্পা ধরলে মা

কী গড়ন,ভাঙা তখন কোথায়…
(হিমালয়ের স্থানীয় ভাষায় গিরিপথকে ‘লা’ বলা হয়)

স্বপন রায়। কবি। জন্ম ১৯৫৬। ভারতের দুটো ইস্পাতনগরী জামশেদপুর এবং রাউরকেলা স্বপন রায়ের অস্তিত্বের সঙ্গে জড়িয়ে আছে। প্রথমটি জন্মসূত্রে। দ্বিতীয়টি বড় হয়ে ওঠার সূত্রে। নব্বই দশকের শুরুতে 'নতুন কবিতা'র ভাবনায় সক্রিয় হয়ে ওঠেন। পুরনো, প্রতিষ্ঠিত ধারাকবিতা ত্যাগ করে কবিতাকে নানাভাবে...

এই বিভাগের অন্যান্য লেখাসমূহ