তারকরঞ্জন গুপ্ত’র কবিতা

তারকরঞ্জন গুপ্ত
কবিতা
Bengali
তারকরঞ্জন গুপ্ত’র কবিতা

তিস্তা

বৃষ্টি নামুক ভীষণ জোরে-
– তেপান্তরে-আকাশ মাঠে
জলের তোড়ে ভাসবে কথা
একলা ভিজে তিস্তা হবো।

কোথায় রে তুই -শাপলা-শামুক-
মেখ ভাঙ্গানো এই বিকেলে?
তোর্ কথাতে দাঁড়িয়ে আছি
ভিজতে একা কষ্ট মেলে!

বার – দুয়ারে, চিলে -কোঠায়
ঝামঝামিয়ে পদ্য নামে-
নামলে কথা থৈ পাব না
বলব কাকে ?ডাইনে বামে?

আসতে বিকেল সন্ধে হলো
মেঘ ভেজা হাত কোথায় পাব?
তোর্ কাছে আর আসব নাকো –
একলা ভিজে তিস্তা হবো।

 

ইচ্ছে ডানা

তোর্ কাছে যে ইচ্ছে ডানা –
– যখন তখন উড়তে পেলি-
সাত সমুদ্র -তেরো নদী –
– রাজপুত্তুর খুঁজতে এলি?

তোর্ ছেলেটা সুবোধ বালক –
– ছু-কিত্ -কিত্ খেলতে জানে?
ওর কাছে তর ঠোঁটের গরম
-বেহিসাবী – লাগাম মানে?

তবু তো তোর্ ঠোঁট ছিল লাল-
-উড়তে গেলি আকাশ-নীলে
ভয় দেখালি? ডুবতে কি ভয়?
– ওই তো মরণ অগাধ ঝিলে!

মরণ কি আর মানায় আমায়?
-যখন তখন মনখারাপে?
ডুবতে গেলে সাহস লাগে!
-ভাবনাগুলো প্রবল চাপে!

তাই…

মনের মাঝে তোর্ ছবিটাই-
–সাঁঝ সকালে লুকিয়ে রাখি
বাউল বাতাস বুক ভরে নিই –
-টাপুর-টুপুর বৃষ্টি মাখি !

জানি রে তুই পেখম মেলিস!
-শেষ রাতে তুই দুষ্টু ভারি –
যখন তখন মাতলামি মন-
-তোর্ হাতটা ধরতে পারি?

তোর্ বাড়িটা মনের কাছে!
-আমি তো এক ছন্ন -ছাড়া
উড়তে দিবি প্রগলভতায়?
-আসছি আমি , একটু দাঁড়া!

প্রেম তো হারায় -প্রেম তো রাঙ্গায় –
-আধেক জানি হাফ অজানা –
তোর্ সঙ্গে থাকতে দিবি?
-তোর্ কাছে যে ইচ্ছে ডানা!

 

আমি-তুমি

তুমি কি এত আমার কথা ভাবো?
— আমি কেন পুরোনো শালবনে?
কথায়-কথায় মাথায় ট্রাফিক জ্যাম-
— হলুদ টিকিট দিন-মাস-সাল গোনে?
কে নেবে এই ভরা আবর্জনা?
— এগুলো কি রিসাইকেলে যাবে?
আমি তো তো জানি জীবন একমুখী!
— সেয়ানা জীবন ফিরতে রাজী হবে?
যাদের সঙ্গে নিত্য ওঠা-বসা –
—তারা নেহাত নিপাট ভদ্রলোক !
তোমার মত বেহিসাবী খেলায়-
—আর কে রাজী? তোমার সঙ্গী হোক!
এরপর রাত বাড়লে পরে আরও-
—ঘুম চোখেতে সবই সমান লাগে-
তুমি অদ্য তোমার মতই আছ-
আমার অতীত আমার সঙ্গে জাগে!

তারকরঞ্জন গুপ্ত। লেখক ও বিজ্ঞানী। জন্ম দক্ষিণ কলকাতায় ১৯৭৩-এর মার্চ মাসে। ৯৪’এ বেলুড় রামকৃষ্ণ মিশন থেকে রসায়নের স্নাতক। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তরের পর, ২০০৩-এ আইআইটি খড়্গপুর থেকে পলিমার কেমিস্ট্রিতে পিএইচডি, পরের বছরেই ফ্রান্সের নান্সিতে সিএনআরএস ফেলোশিপে পোস্ট ডক্টরেট করার পর...

এই বিভাগের অন্যান্য লেখাসমূহ

প্রতিভাস

প্রতিভাস

স্পষ্টতা অন্ধকারের মতো স্পষ্টতা আলোর মধ্যগগনে নেই। উত্তাপে ঝলসে যাওয়া চোখে শীতলপাটি বিছিয়ে দেয় রাত…..

চিঠি

ক্ষোভ রোদের দোকানি হয়ে, ছুঁয়ে গ্যাছি দূর পরবাস আলোর ক্রেতারা দেখে, শূন্য ঝুলি খালি সর্বনাশ।…..