তুষার গায়েনের তিনটি কবিতা

তুষার গায়েন
কবিতা
Bengali
তুষার গায়েনের তিনটি কবিতা

যে-খুন লাল করে সাত আসমান

(তুরস্কের সৌদি দূতাবাসে নির্মমভাবে নিহত সাংবাদিক জামাল খাশোগি-কে )

দূতাবাসের ভিতরে নিখোঁজ মানুষ, বিবাহপত্র পেতে
গিয়েছিল ভোরে, বাইরে অপেক্ষমান বাগদত্তা তার
উন্মুখ পাপড়ি মেলে বসরাই গোলাপ ম্লান হতে থাকে
বেড়ে ওঠে সূর্যতেজ ক্রমাগত মাথার উপরে ─
শরমিন্দা রক্তিমাভার বিপরীতে আছে
উচ্চকিত লাল রঙ আজরাঈলের ছুরির ডগায়,
রাজ-ফরমান নিয়ে ওঁৎ পেতে থাকে পৃথিবীর নিরাপদতম স্থানে ─
টেনে হিঁচড়ে নিয়ে শুইয়ে দেয় মানুষটিকে টেবিলের ’পর
জ্যান্ত জবাইয়ের ফিন্‌কি স্রোতে প্রশমিত হবে রাজক্রোধ!
তার আগে সব প্রতিরোধ ভেঙে দিতে নিশ্চেতন করা
সুঁই বিদ্ধ করে ত্বক এফোঁড় ওফোঁড় ─ এক এক ক’রে
কেটে নেয় প্রতিবাদী লিপি উগরে দেয়া দুরন্ত আঙুল
তারপর টুকরো টুকরো করে দেহ-প্রত্যঙ্গ সব
হাড়কাটা কুড়ালে নিখুঁত!

“কানে হেডফোন লাগিয়ে নাও আমার মতো
কাটার শব্দ যাতে ব্যাহত না করে মনোসংযোগ!

শীর্ষ ফরেনসিক বিশেষজ্ঞ বলেন নির্বিকার
পদোন্নতিপ্রাপ্ত তিনি, রাষ্ট্রীয় খুনীদের ডাক্তার সর্দার।

 

 

কিশোর বিদ্রোহ

বলক দিয়ে ওঠে আগুন
ঝলক দিয়ে ফোটে
শুদ্ধ রাগের শিল্পিত মুখ
সহস্র উল্কাতে –
আঘাত হানে মূহুর্মূহু
স্বচ্ছতার সংকটে!

যান উন্মাদ মৃত্যু সড়ক
স্বেচ্ছাচারের গাড়ি
তর্জনী দিয়ে থামিয়ে করে
লাইসেন্স তল্লাশি …

অস্তগামী পাপের বোঝা
শিশুর কাছে নত,
অর্ধশত বর্ষের ক্লেদ
ঝরছে অবিরত!!

 

 

পদতলে রক্তজবা দেশ

( মুক্তিযুদ্ধের জননী, বীরাঙ্গনা রমা চৌধুরী-কে )

স্বাধীন বাংলাদেশে আপনার শহীদ সন্তানেরা ঘুমায় মাটির তলদেশে,
আপনি নগ্নপদে হাঁটেন যেন জুতার মলিন স্পর্শ সন্তানদের গায়ে না লাগে।
আপনার পদযুগল গ্রীষ্মের দাবদাহে পিচঢালা পথের তীব্র জ্বালাকে সহ্য করে,
শীতের কন্‌কনে ঠাণ্ডায় কুঁকড়ে জমে যেতে যেতে আঙুলগুলো সঞ্চালিত হয়
বৃষ্টির অজস্র ছুরিতে বিদ্ধ হয়ে সম্মুখে আগায় ত্রস্ত পায়ের পাতা –
রক্তআল্পনা দিয়ে আঁকা স্বদেশের মানচিত্র বার বার ভিজে ওঠে
আপনি হেঁটে চলেন অনিঃশেষ এক যুদ্ধের ময়দানে, যার নিচে
আপনার সন্তানেরা মাটির তলে স্বপ্নচোখে নিদ্রা যায়,
আপনি কি আমাদের মত নির্বিকার ঘুমাতে পারেন?

এবার অন্তিম যাত্রার দিনে যখন আপনি মৃত্তিকার আনুভূমে
নিদ্রায় শয়ান হয়ে চলে গেলেন সন্তানদের কাছে –
আমরা আপনার পায়ের পাতার দিকে তাকিয়ে দেখলাম
বাংলাদেশের মানচিত্র সূর্যের রক্তরেখায় মুদ্রিত সেখানে
আপনাকে কোন ভাষায় আমি বিদায় জানাব, মা?
প্রণামের কোন ভঙ্গি যোগ্য হবে আপনাকে বিদায় জানাতে, জানি না!

 

 

 

তুষার গায়েন । কবি, লেখক। গত শতাব্দীর শেষ দশকে বাংলা কাব্যজগতে কবি তুষার গায়েনের আত্মপ্রকাশ। এটা এমন এক সন্ধিকাল যখন বাংলা কবিতা বাক ফিরছে নতুন ভাব, ভাষা, আঙ্গিক ও প্রকরণের সন্ধানে ─ আধুনিকতাবাদী কাব্যধারার ক্ষয়িষ্ণু জলস্রোত থেকে মুক্ত হয়ে আধুনিকোত্তর...

এই বিভাগের অন্যান্য লেখাসমূহ

ফেরা

ফেরা

ফেরা অনেক দিন আসিনি তোমার চোখের কোণে, বুকের পাশে, নিঃশ্বাসের চারপাশে। ভেবো না আমি পথ…..