নির্জনতা

শাহানাজ ইয়াসমিন
কবিতা
Bengali
নির্জনতা

চপলতা

রোদ বেশি ভাই
রোদ বেশি ভাই
বৃষ্টিও নাই
বাতাসও নাই
মন ভালো নেই
মন ভালো নেই
কি করি হায়
ভেবে না পাই
কোন দিকে যাই
ধেত্তেরি ছাই!
বৈশাখী যাই
কিনবো ফিতে
বাঁধবো চুল
পরবো শাড়ী
নাকে ফুল
ধেত্তেরি ছাই
ভেবে না পাই
কী করি হায়
কোন দিকে যাই
মেলাতে যাই
কিনবো মালা
পরবো শাড়ী
আনবো কিনে
রেশমি চুড়ি
ধেত্তেরি ছাই!
মন ভালো নেই
কী যে করি
ভেবে মরি!

ভালোবাসা

ভালোবাসা-
তুমি ছলনাময়ী
ভালোবাসা-
তুমি বহুরুপী
ভালোবাসা-
তুমি চোরাবালি
ভালোবাসা-
তুমি ক্যাকটাস বৃক্ষ
ভালোবাসা-
তুমি ফুলে বসা মৌমাছি
ভালোবাসা-
তুমি নিঝুম দ্বীপ
ভালোবাসা-
তুমি ধূসর, বিবর্ণ!
ভালোবাসা-
তুমি নিঃর্ঘুম রাত
ভালোবাসা-
তুমি চোখের জল
ভালোবাসা-
তুমি লাল নও
ভালোবাসা
তুমি নিকষকালো দীর্ঘরাত!

 

নির্জনতা

আশে পাশে কে নেই
চারিদিকে সবুজ মাঠ
মাঝখানে আমি নীরব একা দাঁড়িয়ে
এলো চুলে গভীর রাত!
কুয়াশায় সাদা শাড়ি ভিজিয়ে
রয়েছি চাঁদের পানে তাকিয়ে!
নিবিড় ভালোবাসায় নীরবতার টানে
নির্জনতা কথা বলে শুন্যতার সাথে!
কুয়াশায় ঢেকেছে সাদা মশারীতে রাত
দূরে, ওই দূরে, বহু দূরে থেমে থেমে
শোনা যায় শুধু শেয়ালের ডাক!

 

শিশির বিন্দু

রাত শেষে ভোরের প্রধম প্রহরে বেরিয়ে এলাম,
প্রকৃতির সাথে ভাব বিনিময় করতে।
দেখি পড়ে রয়েছে সবুজ ঘাসের ওপরে ললনারা
বুকের সাথে বুক মিলিয়ে নীবিড়ে।
অপলক চোখে তাকিয়ে নীরবে দাঁড়িয়ে রইলাম
দৃষ্টির কাছে চললো প্রশ্ন প্রস্ততি –
একি পান্না? নকি হীরে? আচ্ছা ডায়মন্ড নয়তো?
ডায়মন্ড হলে নাকে পরবো নির্ভয়ে!
মুগ্ধ হয়ে এগিয়ে গেলাম।
দেখি, শুভ্রর ভেতরে ক্ষণে ক্ষণে রঙ বদল করছে
সবুজে পড়ে থাকা শিশির বিন্দুরা।
তারা রোদে পোড়ানো দুর্বাঘাসকে সতেজ করছে
প্রেমের আবেগে, আলো ফোটার পূর্বেই!
আমি হাত গুটিয়ে নিলাম তাদের নিবিড় চুম্বন দেখে।
সরে গিয়ে দূরে বসে ভাবলাম-
তাহলে কী মাঝরাত থেকে ভোর পর্যন্ত,
দূর্বাঘাসের বুকেও শিশিরবিন্দু মজে থাকে প্রেমেতে?

শাহানাজ ইয়াসমিন। লেখক। জন্ম বাংলাদেশের রংপুর জেলায়, পেশাগত সূত্রে ঢাকায় বাস। তিনি অংশুমালী'র বাংলাদেশ চ্যাপ্টারের সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। প্রকাশিত বই: 'গহিনের প্রেম' (কাব্যগ্রন্থ, ২০১৭),  'মেঘলা আকাশ' (উপন্যাস, ২০১৮), 'সমুদ্রের তরি' (উপন্যাস, ২০১৯), 'ভালোবাসা ছুঁয়ে গেলে' (উপন্যাস, ২০২০)।

এই বিভাগের অন্যান্য লেখাসমূহ