পঙক্তিনামা

কাকন রেজা
কবিতা
Bengali
পঙক্তিনামা

পঙক্তিনামা

এক.
রৌদ্র এবং ছায়ার গল্প থাক
অন্যভাবে সে নিজের জীবন সাজাক।

দুই.
তোমাকে বলেছিলাম বাজাতে
তুমি সুর তুললে ভায়োলিনে,
দুঃখটা কি তোমার ছিল, নাকি আমার!

তিন.
পরাজিত কে বললো, তাকে কি চেনো তুমি
নাকি বলবে, যুদ্ধের ময়দান হলো মনোভূমি!

চার.
মানুষ হতে বলেছিলাম, মহামানব হতে নয়
ও হতে গেলে নিজের খোয়াব হারাতে হয়।

পাঁচ.
হারাতে হারাতে হাতের আর কি পাঁচ বাকি
দিয়ে দাও, সেটা খুব গোপনে লুকিয়ে রাখি!

বিস্ময়

রুমি বলেছিলেন, ডানা আছে উড়ছো না কেন!
বিস্মিত হয়েছিলেন তিনি, সক্ষমদের অক্ষমতায়।

আমরাও বিস্মিত, বারো’শ সাত থেকে দু’হাজার উনিশ
রুমির বিস্ময় কাটেনি এখনো, আমাদেরও

কেটে দেয়া ডানা দেখে, আজ বিস্ময়ও বিস্মিত।

মানবজনম

(ফাগুন, যে বলেছিল, ‘পুড়ে যাব’)

রুমি বলেছিলেন, মোম হওয়া ততটা
নয় সহজ, যতটা ভাব,

আলো দিতে হলে অন্যদের ঘরে
নিজেকে জ্বলতে হয় বেঘোরে;

জবাব কঠিন, পুড়ে যাব!

এই তো মানবজনম অন্যের তরে
মোম হই, আলো দিই, পুড়ি অঘোরে,

মানবজনম, সহজ নয় যতটা ভাব
রয়েছে জনমে মানুষের অভাবও!

প্রশ্ন
আমি আমার সমস্ত শক্তি জড়ো করি
সকল দান-ধ্যান, পূণ্য-অঞ্জলি সব,
দাঁড়াই ঈশ্বরের সামনে, বলি সকলই বৃথা যাবে?
নাকি বিশ্বাস খুব ছোট হয়ে গেছে দিন শেষে
কৃত কর্মের কাছে, তবে কি পাপ ছায়ার মতন
কখনো বড় হয়ে উঠে ঈশ্বরের চেয়েও!

কাকন রেজা। লেখক, প্রাবন্ধিক ও সাংবাদিক। জন্ম ১৯৬৮ খ্রিস্টাব্দের ৬ মার্চ, বাংলাদেশে, ঢাকার উত্তর শাহজাহানপুরে। তারুণ্যের দিনগুলো পাড়ি দিয়েছেন লেখকের নিজ জেলাশহর শেরপুরে। তাঁর বাবা মরহুম আব্দুর রেজ্জাক ছিলেন, একাধারে লেখক, সাংবাদিক ও রাজনীতিক। মা জাহানারা রেজ্জাক এক সময়ে ছিলেন...

এই বিভাগের অন্যান্য লেখাসমূহ

ফেরা

ফেরা

ফেরা অনেক দিন আসিনি তোমার চোখের কোণে, বুকের পাশে, নিঃশ্বাসের চারপাশে। ভেবো না আমি পথ…..