পালাবদলের পালাতে

মৌসুমী ভৌমিক 
কবিতা
Bengali
পালাবদলের পালাতে

তোমায় নিয়ে বাঁচি

একদিন আমাদের পৃথিবীটাকে
সূর্যসমেত গিলে খাবে একটা কালো বিন্দু
সেদিন কি পুরো সময়টাকেও গিলে খাবে
মাথা ধরার বড়ির মত?

সেদিন এই কবিতার খাতা
খন্ড খন্ড হবে মহাবিস্ফোরণে
অথবা ছিটকে যাবে অন্য পৃথিবীতে
অন্য মানুষের জন্য।

জানিনা সেখানে মানুষ থাকবে কিনা
তবে তারপরও অজস্র কথা থেকে যাবে
বলার জন্য শোনার জন্য
নেই তুমি নেই আমি।

খুঁজতে গিয়ে আলো আঁধারে হারিয়ে যাব
শতকোটি আলোকবর্ষ দূরে কোনো সপ্তর্ষির বুকে!

সেই আলোকের ঝলকে হারিয়ে যাব নিজে
অজানা অচেনা হয়ে পিছে রয়ে যাবে সে।

কালের ঘূর্ণাবর্তে পাব খুঁজে কোনো কুলে
আবার সাজাব পৃথিবী।

পালাবদলের পালাতে

আশ্বিনে,বিস্তীর্ণ নীলে সাদা মেঘের সমারোহ
ও খেতের আলে নদীর বিস্তৃত পরিসরে
থরে থরে সাজানো কাশফুলের মোহ
জাগিয়ে তোলে আগমনীর বার্তা।

এখন এ মাঠ ও মাঠ দিয়ে ঘুরে ঘুরে দেখি
ঐ রাঙা আলো মাখা কাশবন-বনানীর
শুভ্রতা ছড়িয়ে পড়েছে,দিগ্বিদিক
অপরূপ নৈসর্গিক সৌন্দর্যে ভরা।

তার চেয়েও বড় কথা,
কার্তিকের কুয়াশা ছিঁড়ে দীর্ঘ দীর্ঘপথ ভেঙে
এসেছে কি বেলেহাঁস কাশবনে
দু’ঠোঁটের মাঝখানে কাশফুল ভরে নিতে?

জন্ম ভারতের পশ্চিমবঙ্গের শিলিগুড়িতে। বেড়ে ওঠা, শিক্ষা সবই শহর শিলিগুড়িতে। উচ্চ মাধ‍্যমিক সরকারি স্কুলে ভূগোলের শিক্ষকরূপে কর্মরত। লেখালেখি কিশোর বয়স থেকেই। মূলত কবিতাই প্রথম পছন্দের। 'দ্রোহকাল অক্ষরে' সাহিত‍্য পত্রিকা এবং ' ড্যাস ' আন্তর্জাতিক ওয়েব ম্যাগাজিন সহ বিভিন্ন জায়গায় নিয়মিত...

এই বিভাগের অন্যান্য লেখাসমূহ