প্রতীক্ষা

শাহীদ লোটাস
কবিতা
Bengali
প্রতীক্ষা

রঙ কারিগর

কোথায় কোন রঙ হবে
কি কি অঙ্কিত হবে তা সবেই
আম্মা দাড়িয়ে দাড়িয়ে দেখায়
রঙ কারিগরকে ।
দেয়াল হবে টিয়া রঙ
জালনা গুলো হলুদ
আর দেয়ালে লম্বা করে থাকবে গোলাপির সরল রেখা।
মেজো থেকে নিচের সব টুকু থাকবে কালো আর কালো ।
আর দরজায় থাকবে ফুল আকা
লতানো ফুল
ডগা আর পাতার মিশেলে অনেক রঙ্কের বাহারি আকা ।

আম্মা তার মনের মতো সব রঙ-কারিগরকে দেখিয়ে দেখিয়ে দেয়
কাজের আশপাশেই থাকে, আস্তে আস্তে হাটে,
খেয়াল রাখে রঙ কারিগরের দিকে,
রঙ কারিগর আম্মাকে দেখে
কাজের ফাকে ফাকে হাসে আর বলে,
কোন চিন্তা করুইন না যে,
আইনেন মনের মতই কইরা দিমু সব ।
আমাদের ঘরের রঙ কাজ শেষ হয়
উজ্জ্বল আর হাল্কা রঙ্গে রঙ করা হয়
আম্মার ঘর আম্মার মনের মতো ।

সেই ঘর! সেই দেয়াল আর আগের মত নেই আজ !
রঙ্গ হারিয়েছে হারিয়ে গেছে তার জৌলুস
আমাদের ঘর হয়ে গেছে খুব পুরনো ঘর,
দেয়ালের রঙ ফ্যাকাসে হয়ে গেছে
কোথাও কোথাও ফোসকা পরে বেরিয়ে এসেছে বালি ইট ।
এখন নতুন করে আবার রঙ না করালে আর থাকাই যাচ্ছে না।

রঙ কারিগর রঙ করে !
আজ নতুন রঙে নতুন ভাবে অন্য রঙে সব সাজায়
ঘর নতুন সাজে সাজে আবার
আম্মার ইচ্ছে গুলো রঙ্গের তুলিতে বিলীন হয়ে যায়
মুছে যায় মৃত্যুতে হারিয়ে আমার আম্মা ।

প্রতীক্ষা

মৃত্যুর প্রতীক্ষায় থাকি
আম্মার কাছে যাবো বলে ।

দেহের বিচ্ছিন্নতা

চারদিকে এত শত লোক অবাক বিস্ময় নিয়ে
তাকিয়ে দেখে আজ ফুসফুস থেকে নির্গত
আমার যুদ্ধশান্তি  আর অবতরণ  নক্ষত্র ।
কেও বা চেয়ারের এককোণে মাথা রেখে দৃষ্টি রাখে
অনেক দিন পরে দেখা কারো কথা মালায়
অথবা অন্য কাউকে ।
কেও বা  স্বজনের মুখে অবাক ভালোবাসায়
জেনে নেয় দিনকাল ছেলে মেয়ের টুকটাক খবর ।

আর আমি নিশ্চুপ!
অথচ তোমাদের প্রতিটির কথার উত্তর আজ জানা আছে আমার
উপবাস  হুতোম পেঁচা  ফাল্গুন চৈত্রমাসে   মাটির ঘরে
যে প্রিয়তম চুম্বন এনেছিলো একা এক বিষণ্ণ সময়ে
তারো জবাব তোমাদের চোখে তাকিয়ে তাকিয়ে দিতে পারি আমি।
অথচ আমি নিশ্চুপ।

কোরআনের সুরে আগরের ঘ্রাণ বাতাসে ভাসে
কি এক ক্লোরোফিল ঘুম ঘুম যন্ত্রণা উল্লাসে ।

আমি নিশ্চুপ ।

তুমি তাকিয়ে আছ
করুণায় ও ভালোবাসার অভিনয়ে
আমার কাফনে আবৃত দেহে ।
তুমি কি ভাবছ, আমি আজ সব বুঝি।
তুমি আকাশে তাকাও, পাখি দেখো
দেখো আমার শৈশব ও যৌবনকাল।
দেখ বৃদ্ধের যে শেষ ঋতু আমাকে কাদায়
তারো খরা রোদ চৈত্রমাস ।

শাহীদ লোটাস। বাংলা ভাষার লেখক, বাংলাদেশ-এর নেত্রকোনা জেলায় মোহনগঞ্জ থানায় ৩০ মে ১৯৮৫ খ্রিস্টাব্দে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। বাংলাদেশ ও ভারতে শাহীদ লোটাস-এর বেশ কয়েকটি উপন্যাস, কাব্যগ্রন্থ ও প্রবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে। তিনি সমসাময়িক বিষয় নিয়ে লিখতে উৎসাহবোধ করেন।

এই বিভাগের অন্যান্য লেখাসমূহ

কবুতর

কবুতর

অগ্নিকাণ্ড আমার চৌহদ্দিতে ধ্বংসস্তুপের ভীড় পুনর্বার নুয়ে পড়া অতীতের তীর জীবনের মাঝপথে রেখে যায় সম্পর্কের…..