ফ্রেম একটি প্রস্তাব

নীলাব্জ চক্রবর্তী
কবিতা
Bengali
ফ্রেম একটি প্রস্তাব

পাথর

গেস্টহাউসের বিছানায় দুটো বালিশ
আমার মাথায় দুটো কবিতার লাইনকে
লিখতে লিখতে ঠোঁটের ওপরে আলো ফ্যালে
২২০ কিলোমিটার দূরে
আমার প্লেন ঠিক দুদিন পড়ে
উড়ে যায় এই পাথর
মিস করতে করতে
মূল ফটকের ঠিক বাইরে
রঙ একটা সংখ্যা হয়ে কাউক্যাচারে
আমাদের ছায়ার যে টুকরোটাকরা আটকে থাকল…

লাল ঘর

ফেলে দেওয়া কাঁচের হরফ জুড়তে জুড়তে
ভাবো
কীবোর্ডের ভেতর
বেঁকেচুরে থেকে যাওয়া নরম শব্দগুলো
ক্লকওয়াইজ
পুরোপুরি খুলে ফেলা হচ্ছে
চাবি
ঘুরিয়ে
ঘুরিয়ে
আর
পাতানো আঙুলের কাছে এসে
কেমন দ্রাব্যতা শিখছে
স্নায়ুর ভেতর ঘরবাড়ি রেখে আসছে
এই যারা
ভাষাটির দেহে কিছু স্মিত হয়ে গাছ…

খসখসে

ইশারার যে দিকটি
কিছু খসখসে হয়ে উঠছে
ধুলো-পড়া ভাষায় তার এক ব্যবহার
বালিশের ভেতর রেখে আসা কারখানার শব্দ
অভিপ্রায়
জিভের ওপর
আমি তার ভঙ্গিটুকু
আবার নীল রঙের কথায়
লেবু তো একটা গন্ধের নাম
কমলা মাংসের দিকে
আরও একটা অন্যমনস্ক রঙ
ব্লাশ করছে এভাবে…

নিরাময়

হে এই আগ্রহ। ব্যখ্যার অতীত এই কাঁচের প্রহর। স্মিত দৃশ্য ও আদরমালা। অভূত তদ্ভাবে চ্বি প্রত্যয় হচ্ছে। ক-অক্ষরে যতটা বাতাস। ভ্রান্ত। এইসব ভেজা গ্রামার। জলের আখর। ক্রমশ এক শরীর হয় এই ঋতু। অনুবাদ করার মতো বিকেল। শর্তরেখা। পাথর পাথর। ভাষারঙ। ছোট ছোট বাক্সের গায়ে শিখে রাখা আঙুলভাবনা। পাখি ও লোকাস। উড়ানওয়ে। বোঁটায় ফিরে আসছে নিরঙ্কুশ আচরণবিধি। মাংসের সাদাটে দিন। আয়নার মতো কিছু একটা নিরাময় হচ্ছে…

ফ্রেম একটি প্রস্তাব

অথচ ফ্রেম একটি প্রস্তাব। নিঃশর্ত এই পড়ে যাওয়া। সাদাকালো নামের বোতাম। স্মিতটি হচ্ছেন। ঘর অবধি কুচো কুচো মরশুম। পাখি অবধি ব্যবহার। আমি তাঁর কাঁচের ভেতর কাঁচ। নেমে যাওয়া অর্থটি দেখি স্থির হয়ে দুই বাই তিন। এরকম মেরুন যে দিনটি দস্তানায় এঁটে রয়েছে। বিউটি স্পট। দেখতে দেখতে ভঙ্গি। জলের কথায় কথায় ঋতু এক আশ্চর্য। এভাবে স্মৃতি উপচে তর্জনীতে কালি আসছে। উপমা আসছে। মাংসের ছায়া আসছে নীলরঙের ক্যামেরায়…

নীলাব্জ চক্রবর্তী। কবি।   প্রকাশিত বই: 'পীত কোলাজে নীলাব্জ' (জানুয়ারি ২০১১, ৯য়া দশক), 'গুলমোহর... রিপিট হচ্ছে' (ই-বুক) (নভেম্বর ২০১৩, বাক), 'প্রচ্ছদশিল্পীর ভূমিকায়' (জানুয়ারি ২০১৪, কৌরব), 'লেখক কর্তৃক প্রকাশিত' (জানুয়ারি ২০১৭), 'আপনার বার্গার আরও মজাদার বানিয়ে তুলুন' (জানুয়ারি ২০১৮, ঐহিক), 'কোনও...

এই বিভাগের অন্যান্য লেখাসমূহ

অহমিকা

অহমিকা

অহমিকা আত্মগরিমায় আজ অন্ধ হয়ে আছো, বিবেকের দংশনে মননে নেই বিশ্বাস। কর্মে ব্যস্ততা সময়ের আবর্তে…..