বন্ধু চিরন্তন

রুদ্র অয়ন
কবিতা
Bengali
বন্ধু চিরন্তন

ভেঙে দিলে হৃদয় পৃথিবী

একদিন তুমি
ভালবাসার দাবী নিয়ে এলে,
হতে চাইলে প্রেমিকা আমার!

বিষ্ময়ে আমি বলেছিলেম-
ভালবাসলে মনের মাঝে
ধারণ করতে হয়,
গ্রীষ্মের দাহন
বরষার জল
আর বসন্তের রঙ।

তুমি বলেছিলে,
আমাকে পেতে সবটাই পাববে;
তবু আমাকে চাওনা হারাতে কিছুতেই।

আমিও তোমার হওয়ার জন্যে
নিজেকে দিলেম উজার করে।

তুমি একটা আকাশ চাইলে।
মেঘহীন, বৃষ্টিহীন, প্রখর রোদহীন
শুভ্র একটা আকাশ দিলেম এনে।

তুমি পাহাড় চাইলে ;
যার উপর দাঁড়িয়ে
আকাশ ছোঁয়া যাবে।
আমি এনে দিলেম।

ফুল, পাখি, চাঁদ, তারা
আরও চাইলে কতকিছু।
আমি এনে দিলেম সবটাই।
কোনও প্রশ্ন করিনি কখনো।

চেয়ে দেখি
সবকিছু দিয়ে একটা
পৃথিবী বানিয়েছো তুমি।

আমি বরং খুশিই হলাম!
হৃদয়ে ভাললাগার এক নদী
প্রবাহিত হতে থাকলো!

এক সকালে
তুমি সহসা বললে-
এ পৃথিবী তোমার
আর ভালোলাগে না!
ভেঙ্গে ফেলবে তুমি!
আমি পাথর দৃষ্টি নিয়ে বললাম-
কেবল ভাল না লাগলেই
ভেঙে দিতে নেই।
একবারও কি ভাববেনা
পৃথিবী ভাঙ্গার নিদারুণ কষ্টগুলো!

তুমি কোন কথাই শুনলেনা
নির্দয় হাতে ভেঙে দিলে
অনেক যত্নে গড়া একটা পৃথিবী!

একদিন বলেছিলে,
আমাকে পেতে
সবকিছু করতে পারো।
অথচ যেই সবকিছু হলো পাওয়া
ওমনি নিজের খেয়ালে
ভেঙে দিলে সব!

ভেঙে দিলে একটা হৃদয়,
ভেঙে দিলে অনেক
যত্নে গড়া একটা পৃথিবী!

 

নতুন দিনের ভোরে

আমার একটা
ঘুম কাতুরে
রজনী দরকার,
বড্ড নির্ঘুমে
রাতগুলো কাটে এখন।

ক্লান্তি বিহীন দিনের
ভীষণ দরকার আমার।
আমি যে দিন দিন
বড্ড বেশি ক্লান্ত হয়ে পড়ছি!

শরীর মন
জুড়িয়ে নিতে
একটা শীতলপাটি
দরকার ভীষণ।
আমি যে দহন জ্বালায়
দগ্ধ হয়ে আছি।

আমায় একটা শান্তির
নগরী খুব দরকার ;
আমি যে অতি কঠোর
জীবনীশক্তি নিয়ে,
দীর্ঘ দিবস অতিবাহিত করছি।
আমি নিজেকে ব্যস্ত রাখতে চাই
অক্লান্তির আদুরে শহরে।
আমি উড়িয়ে দিতে চাই,
সকল জীর্ণ- ক্লান্তি-
অসুস্থতার প্রকোপ।
জেগে ওঠতে চাই
নতুন দিনের ভোরে।

 

হারানোর কিছু নেই

বুকের গভীরে
আকাশ রেখেছি লুকিয়ে;
বৃষ্টির জন্যে তাই
এখন আর প্রার্থনা নেই।
দেবীর কাছে নেই
আত্মার আকুতি।

চোখের কোণে
লুকিয়ে রয়েছে
এক সাগর।
জলের প্রেমে তাই
পদ্মপাতায় লিখিনা
শিশিরের গল্প।

বুকের গভীরে
লুকিয়ে আছে
এক আগ্নেয়গিরি ;
পুড়ে যাওয়ার
ভয় করিনা আর।

মহাশুন্য বুকে নিয়ে
পাড়ি দেই জীবনের পথ।
কিছু হারানোর ভয় নেই আমার।

 

বন্ধু চিরন্তন

তুমি আর আমি বন্ধু হবো
মাঝে মাঝে ঝগড়া করবো।
অভিমান ভুলে আবার
দু’জন কথা বলবো।

এসো মন খারাপের কারণগুলো
বাতাসের স্রোতে ভাসিয়ে দেই।
যেখানে যত সুখ থাকে পড়ে
চলো দু’জন মিলে নিই কুড়িয়ে।

দুঃখগুলো ধুয়ে
সুখের বরষায় তুমি আমি
হাতে হাত রেখে ভিজবো,
চোখের জলে নয়
মিষ্টি হাসিতে ভাসবো দু’জনে।

পাওয়া না পাওয়ার হিসেব
আমরা না হয় করবো না।
কেউ কারো জন্যে
অসম্মানের পাহাড় গড়বো না।
চোখের আড়াল হলেও
মনের আড়াল হবোনা।
এভাবেই না হয় আমরা
ভালো বন্ধু হয়ে থাকবো।

মন খারাপের গহীন রাতে
যখন আমাকে মনে পড়বে,
চোখের কোণে
একটু হলেও
জল ঠিক জমবে।
তখন তুমি হয়তো
দূর আকাশে
তারার মাঝে আমাকে খুঁজবে।
আমি যে তোমার
সত্যিকারের বন্ধু ছিলেম
সেই কথাটা ঠিক তখনই বুঝবে।

রুদ্র অয়ন। কবি।

এই বিভাগের অন্যান্য লেখাসমূহ

বেশরম

বেশরম

বেশরম কি কঠিন ছিলো, ডুব সাঁতারের রুদ্ধ দম তোমাকে ভুলেছি ঠিক এক বেশরম- আবার পড়েছি…..

তোমার জন্য

তোমার জন্য

পাষাণের প্রেম বিকট স্তব্ধতায় সুনিপুণ সীমানা প্রাচীর তুলেছ, বেসামাল ভালোবাসার জাগতিক জায়নামাজে। প্রার্থনার গতিরোধ করো…..