বাতাসের বীজ থেকে জন্ম নেয় অস্পৃশ্য হরিণ

চিরঞ্জীব হালদার
কবিতা
Bengali
বাতাসের বীজ থেকে জন্ম নেয় অস্পৃশ্য হরিণ

অলোক সওদাগর

খড়দহের অলোক সওদাগরকে নাও চিনতে পারো।

বিদ্যায়তনের নিষ্ঠাবান কাঠামো থেকে উঠে আসা পুরুষ চরিত্র।
প্রতিদিনের আলো যে বিশ্রাম ধর্মের ভেতর মাতৃদুগ্ধ খুঁজে বেড়ায় সেই অনিয়ন্ত্রিত ভাটিখানায় রাত জাগা নিয়ন শ্রমিক।
তার জন্মকথনের ঠিকুজী কেষ্ঠি ভুলে যায় যে কোন বিধৌতক্ষেত্রের ভেতর এক নীল ধারা থাকে।
তাই মদন ঠুলিদারের কথা অতিরিক্ত উপপাদ্য মনে হলেও
আমরা চিনে নিতে পারি এপাড়া একটি অন্ধ বিদ্যালয় ব্রেল জাতকদের সুতিকাগার।
একজন মুক মানুষের ছবি আঁকতে
দক্ষ অলোক সওদাগর সেই কবে থেকে নিরুদ্দেশ।
তা কী একমাত্র বাঁচার পদ্ধতি বলে
ধরে নেবো।
মদন ধুলিদারকে কেহ মনে রাখবেনা শুধু তার বাজনা থেকে অসংখ্য সওদাগর নাও ভাসায় উজান নক্ষত্রে।

 

এবং দশটি অণুকবিতা

বাতাসের বীজ থেকে জন্ম নেয় অস্পৃশ্য হরিণ
তৃণক্ষেত পাহারা দেয় বাঘের দোসর,
হরিণের গন্ধ মেখে জেগে থাকে অনাগত দিন
জীবনের থেকে শ্বাস চুরি করে চোর।

২.
ধর্মাবতার আমাদের গর্ভাশয়ের আত্মকথা এখানে লিখে রাখা যাবে!

৩.
হাঁসেরা কি পালকদের স্বার্থপরতা শেখায়।

৪.
হস্তান্তরযোগ্য প্রেমিকার নাম ফেসবুক।

৫.
একটি বিড়াল তার ছায়ার কাছে
নতজানু হয়ে জানতে চাইলো
মাছ আর দুধের ছায়ারা কেন তাকে ভয় পায়।

৬.
হে ধর্মাবতার
মদ খেলে তুমি কার?

৭.
ও আলোর ডাক্তার
তোমাকে কি ভাবেই বলি-
সেই সব নির্বাচিত অন্ধকার কথা।

৮.
সব থেকে কঠিন
মহাদুগ্ধের মানচিত্র আঁকা।

৯.
মেঘেরা যদি পরতেথাকে উলটো করে শাড়ি
রাষ্ট্রতাকে ভেট পাঠাচ্ছে হাজত বাসের গাড়ি।

১০.
কন্যা আর পুত্র
এরাই ধর্মসূত্র।

চিরঞ্জীব হালদার। কবি। মূলত ক্ষুদ্র পত্র -পত্রিকার লেখক। জন্ম- ২০ সেপ্টেম্বর ১৯৬১, গাববেড়িয়া; দক্ষিণ ২৪ পরগণা, পশ্চিমবঙ্গ, ভারত। পড়ালেখা করেছেন মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং এ ডিপ্লোমা। লেখালেখির শুরু গত শতাব্দীর আশির দশক। শুধু কবিতা আর ভালো কবিতাই তাঁর আরাধ্য। এপর্যন্ত নির্মিত কাব্যগ্রন্থ ষোলটি। প্রকাশিত সাতটি। যৌথ সংকলন একটি। সম্পাদিত কবিতা...

এই বিভাগের অন্যান্য লেখাসমূহ

অহমিকা

অহমিকা

অহমিকা আত্মগরিমায় আজ অন্ধ হয়ে আছো, বিবেকের দংশনে মননে নেই বিশ্বাস। কর্মে ব্যস্ততা সময়ের আবর্তে…..