বার্তালাপ একান্তে

সুপ্রীতি দাস
কবিতা
Bengali
বার্তালাপ একান্তে

অনুভবে শুধু তুমি

তুমি আমার কবিতার একান্ত অনুভব
আমার গোধূলি বেলার সাঁঝের প্রদীপ
তুমি আমার বেলা শেষের ভালবাসা
আমার একাকী জীবনের কিছু সুপ্ত অনুভূতি।

হয়তো কোনদিনই হবে না দেখা
তবুও রয়ে যাবে তুমি গভীর অনুভবে আমার চোখের পাতায়..
তোমাকে ভালবেসে কাছে না পাওয়ার যন্ত্রণাগুলো
গভীর রাতে ভিড় জমাবে আমার কবিতার খাতায়।

তোমার চোখের তারায় আমি নিজেকে খুঁজি বারবার
তোমার বুকের অতলে হারাই আমি…
হই মিলে মিশে নিঃশব্দে একাকার।
আমার একলা রাতের আঁধার ঘরে তুমি মুঠো ভরা জ্যোৎস্না…
তোমার কাছে মুক্তি পেতে চায় আমার বুকের চুপকথারা..
তুমি যে আমার অকাল শ্রাবন,, আমার কবিতা লেখার তৃষ্ণা।

 

তোমাকে ভেবে

যদি কোনো মন খারাপের দিনে আমাকে খোঁজো
আমি হতে পারি তোমার আকাশে ঝলমলে রোদ্দুর
যদি কখনো অবসরে আমাকে মনে পড়ে…
আমি হতে পারি কোনো গল্প বা উপন্যাস
যদি নির্ঘুম রাতে আমাকে ভাব কোনদিন…
আমি সেদিন হব তোমার খোলা আকাশ।

কাঁচের গায়ে বৃষ্টির ফোঁটা জলছবি আর আঁকবে না
বুকের ভেতর জমানো কিছু গল্প ছিল…
থাক্ ! সে সব তুমি বুঝবে না ।
আজও বিকেল একলা আছে গাছেদের পাড়া জুড়ে
সন্ধ্যা নামে নিঃশব্দে,,, মনের আকাশে মেঘ জমে..
বৃষ্টি হয়ে ঝরে পড়ে সারা রাত্রি ধরে।

মনের মাঝে গুমরে মরে মন কেমনের মেঘ
রাতের আকাশে তাই আজ তারই ঘন ঘটা…
হয়তো উঠবে তুমুল ঝড়,, সাথে নামবে তুমুল বৃষ্টি
তোমার অবহেলায় তো আজ এত অভিমানের সৃষ্টি।

 

বার্তালাপ একান্তে

ওই দূরে সাঁকোটা দেখা যায় বড্ড নড়বড়ে
তবুও প্রতিদিন কত লোক কে পৌঁছে দেয়…
নিশ্চিত ভাবে নিরাপদ আশ্রয়ে।

জান ! আমাদের মাঝেও ঠিক এমন একটা
সাঁকো আছে,,, প্রতিদিন একটু একটু করে
নড়ে যাচ্ছে ওর ভিত্ টুকু….
অকাল বর্ষনে ভিজেছে তোমার আমার বর্ষাতি
স্বপ্নের রোদ্দুর আস্তে আস্তে উধাও হয়ে মুখ লুকিয়েছে।

আজকাল বৃষ্টির ফোঁটা গুলো মনে হয় যেন..
জ্বলন্ত লাভার ছিটকে আসা ফুলকির ছটা।
ওরই তাপে ঝলসে গেছে সব সুখ স্বপ্নরা
তবুও দেখি ওরই মাঝে জন্মায়,,, কিছু স্বপ্ন কিছু আশা।

রোদ ওঠার সাথে সাথে বিকিয়ে যায়
ফেরিওলার হাতটি ধরে নিতান্তই সস্তা দরে…
তবুও একাকী স্বপ্ন দেখি প্রতি দিন ভোরে
বিকিয়ে গেলেও রেশ টুকু রেখে যায় একান্ত অন্তরে।

 

তোমাকে চাই

একলা আকাশ বাউল বাতাস,,, দীঘির বুকে শূন্যতা খেলা করে…
মেঘলা দুপুর মন মেদুর একান্ত অবকাশে অশ্রু ঝরে।
ক্লান্ত সাঁঝে আঁধার ঘনায় জোনাকির আলোয় পিদিম জ্বলে..
মন যমুনায় গা ভিজিয়ে রয়েছি বসে,,, পথ চেয়ে তুমি আসবে বলে।

নিঝুম রাতে একা চাঁদ হাসে,,, চোখের কার্নিশে ঝোড়ো মেঘ জমে..
হাওয়ায় হাওয়ায় চলে কানাকানি,,, কাছে না পাওয়ার চাপা গোঙানি
তন্দ্রা হারা চোখ থৈ থৈ জলে বুক ভাসে।

আমার একলা রাতে আকাশ ডাকে,,, বুকের ভেতর তোমায় খুঁজি…
রাতচরা পাখি থাকে সাথে,,, দূরে কোথাও কেউ বিলাপ করে।
অনুভবে ছুঁয়ে আছ তুমি,,, তারার মালায় সেজেও চাঁদ আজও একা…
তাই তো একাকী জীবনে আছি বেঁচে,,, ভিড়ের মাঝে থেকেও জীবনটা তো আদতে ফাঁকা।

সুপ্রীতি দাস। কবি। জন্ম ভারতের পশ্চিমবঙ্গরাজ্যের কলকাতায়। পড়াশুনা করেছেন বাংলা সাহিত্যে।

এই বিভাগের অন্যান্য লেখাসমূহ

শঙখচিল

শঙখচিল   অসীম নীলাভ শূন্যতায় নির্ভার মেঘপুঞ্জের মত উড়ছে শঙখচিল, শিল্পিত ছন্দে পাখায় গেঁথে শূন্যতার…..