বিবেক কথা

ইতিকা বিশ্বাস
কবিতা
Bengali
বিবেক কথা

শুভ মা দিবস

দিনটি অতি মূল্যবান সনের হিসেবে
মা যে আমার পরম গুরু মাতৃজগতে
তোমার জন্য ধরায়ে আসা প্রথম তোমার ছোঁয়া
তোমার জন্য প্রথম আলো এই নয়নে দেখা
এসেছে যতই দুঃখ তোমার মুখে দেখেছি
স্বর্গ সুখের প্রতিবিম্ব
রাগের কারণ জানতে তুমি…
মিটিয়ে দিতো অবশেষে
অন্যের কাছে বিরক্তিকর তোমার কাছে আবদার।
তোমার জন্য সন্তানের প্রাণ যেমন বেঁচে থাকে
প্রতিটি ‘মা’ যেন বাঁচার প্রাণ পায়
যেমন সন্তানদের রেখেছে ঘিরে
বিশ্বের সব মা আশার আলো নিয়ে বাঁচে
এই আমার আজ দৃঢ় অঙ্গীকার।
আজ শুভ মাতৃ দিবস
সব মায়েদের প্রতি রইলো শ্রদ্ধা ভক্তি প্রণাম
মা তুমি ছাড়া এই জগৎ রঙিন আলোর মাঝেও
কালো ঘোর অন্ধকার
আজ আমাদের বিশ্ব ‘মা’ দিবস।

 

তুমি আছো কবিতায়

মৃত্যু তোমার হয়নি কবি মৃত্যু হয়েছে কোষের
মৃত্যু তোমার হয়নি কবি মৃত্যু হয়েছে দেহের
মৃত্যু তোমার হয়নি কবি মৃত্যু হয়েছে সমাজের
মৃত্যু তোমার হয়নি কবি মৃত্যু হয়েছে অমূল্য দেশের।

মৃত্যু হয়না কবি ও কবিতার
মৃত্যু হয়না কবির ভাবনা চিন্তার
মৃত্যু হয়না জন্ম দেওয়া কবিতার বাস্তবতা
মৃত্যু হয়না মায়ের সমান শব্দ মাতার।

তুমি আছো ধরায়ে রবে শাশ্বত
তুমি আছো হৃদয়ে স্হায়ীত্ব
তুমি আছো উন্মুক্ত প্রকৃতির মাঝে চিরন্তন
তুমি আছো সকল কবির প্রাণে উজ্জীবিত একাত্ব।

রক্ত মাংস শরীরের নিঃশ্বাস যায় থেমে
যায়না থেমে কবির কলম যুগ যুগ যুগান্তর
কবি তুমি বেঁচে আছো পৃথিবীর কোলে
তোমার ঠাঁই প্রাণের প্রিয় অন্তরেতে সবার।

 

গভীরতা

ইচ্ছে করে তোর বুকের মাঝে করি বাস বারোমাস
আমার দীর্ঘশ্বাস ঘিরে তোর বিশ্বাস।
নিশ্চিত নিঃশব্দ নিঃশ্বাসে আদর মাখা তোর
উঁকি দিচ্ছে দেখো ভালোবাসার বাইরের রোদ্দুর।
শরীরের শিরায় শিরায় রক্তের উষ্ণতায়
শিহরন দিচ্ছে পাল্লা ভরপুর মুগ্ধতায়।
স্পর্শের আঙ্গিনায় ভীষণ আমি একা
ক্লান্ত সারা দুপুর বেলা তাই নিয়েই গভীর ভাবা
আমি হারিয়ে যাওয়া তোর একা।
নিশ্চুপ কথা বলা কানে কানে আজও বাজে
তার সুরের বোলে হালকা আওয়াজ বাতাসে ভাসে
ইচ্ছে করে মাঝে সাজে।
মন আনমনা করে বেমানান চায়না কিছু মানতে
তোর চোখের দিকে চোখ ফিরালে
আমি হারিয়ে যাই তোর হৃদয়েতে।
আঙুল যখন চায় ছুঁতে আঙুল আত্মহারা
নিজেকে বাঁধা খুব মুশকিল চায় আপন সাহারা।
অভিমানের জড়িয়ে রাখা জড়তা যায় ভেঙে
তোর মুখের পানে চেয়ে থাকি এক মনে
থাকি যেন সারাক্ষণ তোর প্রেম মাখা পরশের সঙ্গে।
মিলিয়ে যায় দুটি মন অজানা রহস্যের দরজায়
আমি শুধু আসি বারে বারে তোর মন কাড়ায়।
তুই কি আমার সেই মনের ঘর
সাজানো একটু একটু করে অন্তবাস
আমার ছোট্ট হৃদয়ের সুখের খেলাঘর।

 

বিবেক কথা

জীবনের প্রতিটি মুহূর্ত যদি ভালোবাসায় গড়ে ওঠে
সেখানে থাকে মান-অভিমান সুখ-দুঃখ
ক্ষনিকের ঝড়, পরমুহুর্তে আবার হাতছানি
স্নেহ মায়া মমতা আপনতার হৃদয়ের বন্ধন জাগে
আত্মায় কথা বলে ওঠে।

মিথ্যের কারসাজির থাকে যদি বাস
ঐ সুন্দর মনে যা আছে হবে সব ছাড়খাড়
অভিনয় করতে করতে নিজের সাথেই হবে অভিনয়
ভাবছো তুমি দেখছেনা কেউ বিবেক রয়েছে
মুখ চেপে, শিড়দাঁড়া করবে সোজা অজান্তেই
যতই তোমার রাজপ্রাসাদে হোক না বাস।

সবার সম্মুখে নারী জাতিকে করছো শ্রদ্ধা ভক্তি
পিছনপানে করছো ভোগ করছো গ্রাস ভদ্রতায়
সমাজের চোখে অন্ধ সেজে করছো সমাজ অপমান
সময় দেবে সঠিক জবাব পাবেনা মনোবল শক্তি।

বুঝবে সেদিন থাকবেনা কেউ থাকবে চোখের জল
তাও হয়তো শুকিয়ে যাবে খরা রোদের তাপ
পারবে নিতে নিজের করে সময়ের বেদনা
শক্ত পাষানে গড়েছো মন জানি…
শত আঘাত তোমায় ভাঙতে পারবেনা… অভ্যাস,
সাধুর অভ্যাস আমি যা করি ভালো…. পর সব ভুল।
এটাই আজকের পৃথিবী সমাজ বদলালেও
বদলাতে দেবেনা সভ্যসমানুষের সভ্যসমাজের,
সভ্যতার মুখোশের আড়ালে অসভ্যতার রুপ
এরাই আবার নানা বোলে বুলি তোলে
এদের মিথ্যে মায়ার মিথ্যে চোখের জল।

ইতিকা বিশ্বাস। কবি ও শিক্ষক। ইতিকা উত্তর ২৪ পরগনা জেলার ঠাকুর নগরের শিমুলপুর গ্রামের এক মধ্যবিত্ত পরিবারে ১৯৯১ সালে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর তিনি একজন উচ্ছল প্রাণের, মুক্তমনা, সদা হাসিখুশি, আনন্দময়ী, বাস্তববাদী, কল্পনাপ্রবণ, ভাবুক প্রকৃতির, আদর্শবাদী ও আত্মবিশ্বাসী। তিনি কবিতা লেখার...

এই বিভাগের অন্যান্য লেখাসমূহ