বেড়াল

ওয়াহিদার হোসেন
কবিতা
Bengali
বেড়াল

বেড়াল

ব্যাগের ভেতর বেড়াল।বেড়ালের খোয়াইশ।ডানা।

ব্যাগ হাঁটতে বেরোল একদিন।পথ রাস্তা পেরিয়ে।
ট্রাফিক পুলিশ পেরিয়ে।ব্যাগ আমাকে জানালো
গুডমর্নিং

আমার বুকের ভেতর এমন বেড়াল আছে।

অন্ধকারে

অন্ধকারে হাঁটতে বেরোব।চাঁদের পাড়ায়।

চুল্লিতে ভুনে যাওয়া মদ মাংসের অক্ষরে আমরা খিদে তৃষ্ণা মেটাব।

গালিবের মাজারের পাশে বসে নৈ:শব্দের সঙ্গে অনেক বোঝাপড়া আছে।

কেউতো কাফের বলুক চাঁদের আলোয়।

 

যবে তুমি এলে

যবে তুমি এলে।কাব্যিক হেঁটে।

দু’চারটি প্রতিবাদের অক্ষর।
দু’চারটি উদ্ধত আঙুল।হাঁড়।

শ্লোগান।কবিতা।

ফেরিওয়ালা ডাকছে।কবিতা নিন।কবিতা নিন।

ফুরিয়ে আসছে ভোরবেলায়।

 

চাঁদ বরদই

প্রেম নামের অক্ষরে অনেক মনখারাপ।রোঁয়া ওঠা রাত।

হেঁটে আসা ছায়ার গালে লিপস্টিকের দাগ।
যুদ্ধ।শন শন প্রাগৈতিহাসিক হাওয়া।

শতধা বিচ্ছিন্ন এক ওড়নায় চাঁদের আলো। চাঁদ বরদই।

ওয়াহিদার হোসেন। কবি। জন্ম ১৯৮৬, ভারতের পশ্চিমবঙ্গরাজ্যের আলিপুরদুয়ার জেলার দক্ষিণ খয়েরবাড়ি রাঙ্গালিবাজনায়। লেখাপড়া করেছেন ইংরেজি সাহিত্যে। পেশাগত জীবনে তিনি একজন শিক্ষক। চাকরি করছেন ডুয়ার্সের এক প্রত্যন্ত চা বাগানের প্রাথমিক স্কুলে। প্রকাশিত বই: 'মধ্যরাতের দোজখ যাপন' (কাব্যগ্রন্থ, ২০১৩) এবং 'পরিন্দা' (কাব্যগ্রন্থ,...

এই বিভাগের অন্যান্য লেখাসমূহ