মাটির ভাঁড়ে চা

ছবি মাইতি
কবিতা
Bengali
মাটির ভাঁড়ে চা

মাটির ভাঁড়ে চা

সারা বিশ্বে ছড়িয়ে আছে যত বাংলাভাষী
দূরত্ব হোক শুধু ভৌগলিক
গ্যাঁট হয়ে আছি আমরা সবার কাছাকাছি।

এই যে তুমি বাংলা পড়ছো
কতই না ভালবেসে
এক ভাঁড় চায়ে প্রেমে পড়েছিলে
একানিয়া লাগে চোখে আসে জল
বিদেশ বিভূঁই এসে।

আঙুল ছোঁয়াও, জল মুছে নাও
ডাঁটে এর কথা তুমি বাঙালী
মাটির ভাঁড়ে চা খাও।

 

চাঁপা ফুল

সে ছিল মালী
নানা রঙের ফুলের মাঝে
সে যেন ফুলরাজ।
সন্ধ্যায় বাড়ি ফেরে
গৃহদেবতার কাছে নতজানু
শূন্য হাতে।

একদিন সুবাসিত চাঁপা ফুলে
ম-ম বাগান।
ইচ্ছে হলো এক চাঁপা, অঞ্জলি দেবে
গৃহ দেবতার পায়ে।
না জানিয়ে আনে, এক চাঁপা
অঞ্জলি দেওয়ার আগেই,
হাত কাপে।

সে বেতনভোগী,
ছুটে যায় হকদার মনিবের কাছে
ঘাটমানা জোঢ়হাতে,
চাঁপা ফুল তুলে দেয়
মনিবের হাতে।
চাঁপা ফুলের খুশবু-
হাতে আর বাড়িময়
রয়ে গেলো চিরতরে।

বৃষ্টি-১

বৃষ্টি চাইলেও, না চাওয়া
উটকো ঝড়,মেঘের বাহন
জানান দেয়- আসছে।
তার আসার আনন্দে
মোচড় দেওয়া শরীরের
কলকব্জা তরান্বিত।

বৃষ্টি-২

বৃষ্টি পড়ে সশব্দে এজবেষ্টারের ছাদে
কানের দুলে সোহাগ ঝরে।
ফ্ল্যাট বাড়িতে বন্ধ দরজা, জানালায়
কোন মেঘে বৃষ্টি হলো
জানলো না কেউ।

 

গরমি

গরম হাওয়া বন্ধ করে
শীততাপ নিয়ন্ত্রণে-
হারিয়ে যাচ্ছে তাপমান।
মেহনতি মানুষের হল্কা ঘাম
শোষনে বাতানুকূলে
হিসেব হয় দাম।

ছবি মাইতি। কবি, সাহিত্যিক ও সাহিত্য সমালোচক। জন্ম ও বাস কলকাতা। প্রতিষ্ঠাতা ও সম্পাদক বাংলা Canvas সাহিত্য পত্রিকা।

এই বিভাগের অন্যান্য লেখাসমূহ

ফেরা

ফেরা

ফেরা অনেক দিন আসিনি তোমার চোখের কোণে, বুকের পাশে, নিঃশ্বাসের চারপাশে। ভেবো না আমি পথ…..