যুগল সময় ও অর্থহীন অভিমান

তৌহীদা ইয়াকুব
কবিতা
Bengali
যুগল সময় ও অর্থহীন অভিমান

যুগল সময় 

কিছু আমি তার বুঝিনি
হাজার আয়নার টুকরো থেকে
তুলে আনি সুন্দর কিছু আপেক্ষিক।
দিনের মত সোনালি রুপালি বিকেল
অন্যমনস্ক সন্ধ্যের কাছে কূয়াশা রেখে
ধ্যানী আঁধার কথা বাঁধে ভোরের নিবেদনে
বৈতালিক সুর, এখন আমারও সময় এবং
খাঁচা ও পাখি।
আমিই ঊড়াল,
তোমারও সময় , অনড় স্থিতি
ছুঁয়ে আছে এক আলাদা পৃথিবী।

০৯/১২/১৮
পারপিনিয়, ফ্রান্স।

সরল মিথ্যের মত 

এই যে ঘন হয়ে এলো অন্ধকার
এর বাইরে কি আছে? খুব কিছু মনে পড়ে না।
মুক্ত দানা শিশিরের দু’ একটা মিহি শব্দ
বালিকা বিকেল ,যুগল বেণী,
ফিরা পথে পাওয়া ভাঙ্গা পালক।

বাকি কথা হারিয়ে গেছে
সহজ মিথ্যের মত জীবনের?
অনায়াসে ভুলে যাওয়া যায় এমন
উৎসব সন্ধ্যা শেষে –
পুনরাবৃত্তি নেই জেনেও নিজের কাছে আসি।
যে কথা বলি না, তাকে মনে করার মত
প্রিয় পৃষ্ঠা খুলে দেখে নেই গত ফাল্গুন
শুকনো স্মৃতি।

আমার একটি কথা বাঁশি জানে।

সম্পূর্ণ শব্দহিন হতে
মর্মর ছড়ায়ে চুম্বন আঁকি ঠোঁটে
এটা স্বপ্ন কাল বুঝি জেগে উঠি যখন
বিরুদ্ধ শিবিরে বাঁশি বাজে
সমীকরণ মিলাতে দেয়ালের সংসারে
আয়নার উল্টো দিকে হাঁটি।
এ-ঘর ও-ঘর প্রতিদিন
অখন্ড নিয়ম আবাসিক?
বারান্দায় বা খোলা জানালায়
আলো আর রোদের আলিঙ্গন দেখি
দু’টি কথা মনে এলে
এলোমেলো হই।

আর এভাবে
আবারো বাঁশি, মনে পড়ে
আর মনে হলেই এ মায়া সংসারে
ভগ্নাংশ হয়ে বসে থাকি
খরস্রোতা আলোতে
অন্ধকারে ।

অর্থহীন অভিমান

এই টুকু সময় ধরে নিস্ফলতা। যতটা দীর্ঘশ্বাস জমে গেছে, ক্ষুণাক্ষরে তার কিছুই বুঝবে না আগামী উৎসব। হাহাকার কান্না প্রতিকারহীন। অভিমান সেও রেখে দেখেছি, সেখানে রাতভর পিপড়েরা বিষ ঢেলে দিয়ে গেছে।

তৌহীদা ইয়াকুব। কবি। জন্ম- ১৫ই মে ১৯৬৯। বাড়ি টাঙ্গাইল জেলার ভুঞাপুর উপজেলায়। বাবা ইয়াকুব আলি তালুকদার, সরকারি কর্মকর্তা ছিলেন। মা ছিলেন গৃহিনী। চার ভাই বোনের মধ্যে তিনি ৩য়। ছোট বেলা থেকেই লিখছেন। তবে প্রকাশে একেবারেই অনিচ্ছুক সবসময়। ফেসবুকে নিজের স্ট্যাটাস এ...

এই বিভাগের অন্যান্য লেখাসমূহ

অহমিকা

অহমিকা

অহমিকা আত্মগরিমায় আজ অন্ধ হয়ে আছো, বিবেকের দংশনে মননে নেই বিশ্বাস। কর্মে ব্যস্ততা সময়ের আবর্তে…..