শারমিন সুলতানা রীনার পাঁচটি কবিতা

শারমিন সুলতানা রীনা
কবিতা
Bengali
শারমিন সুলতানা রীনার পাঁচটি কবিতা

মেঘের ডাকের মাঝে ছলনা চাতুরী
তৃষ্ণার্ত চাতক বোঝে মরম জ্বালায়

আঁধার রাতের শেষে সোনালী সকাল
মায়ার বাঁধনে তার নিজেকে উজাড়

অথচ মানুষ বোঝে প্রকৃতি সংহার
ধ্বংসের মাতমে চলে নিজস্ব খেয়াল

জন্মের সাধনে এই মনুষ্য বিবেক
সযত্নে টিপেছি গলা ফেলেছি ভাগাড়ে

একত্রে মিলেছে আজ প্রকৃতি মানুষ
নির্মম তান্ডবে স্রষ্টা অনড় বিমুখ…

দুই

মাটির জঠরে আছো নিশ্চিন্ত যাপনে
ভোরের কোকিল ডাকি কামনা কাতর

শুনতে পাওনা কেনো অবুঝ ক্রন্দন
পুতুল খেলার মতো ভেঙেছো সংসার

বয়সী রোদের ভারে লুটায় বিকেল
রাতের শরীর পোড়ে আঁধার প্রতাপে

সাজাই জীবন ডালা নির্মম দহনে
নিরব ভাষায় সই নিভৃত যাতনা

আমাকে বরণ করো পুনরায় এসে
আঁচল ভরবো ফুলে নতুন বাসরে

 

তিন

জলের প্রপাতে ভাসি আকন্ঠ তৃষ্ণায়
সুনীল সাগর জলে লবন শরীর

গহন বেদনা জ্বালা কতটা পোড়ায়
রক্তাক্ত পালকে শুনি করুণ চিৎকার

একটু একটু করে ক্ষয়েছি মগ্নতা
শিকলে জীবন বন্দী জ্বলন্ত সংসার

পারিনা ফিরতে বোধে সীমানা প্রাচীর
মুহুর্তে চমক দিয়ে আকারে দাড়াও

বুকের তিমিরে কান্না অবুঝ শিশুর
নিঃসঙ্গ প্রতিমা যেন আগুন শিখায়।

চার

বলতে পারনি ভালো কতটা বেসেছি
কিছুটা সময় তুমি দাওনি কখনো

তোমার আমার মাঝে ব্যাস্ততা সময়
তোমার ভূবণ জুড়ে কেবলি প্রহরী

তবুও দিয়েছি নাড়া শুনতে পাওনি
সংসার সাগরে এক তরীর নাবিক

ভাসতে ভাসতে আসি সখের খেলায়
সাজাই নিপুণ হাতে কর্ষিত বাগান

একদা শ্রাবণে গেলে মেঘের বাড়িতে
এখন তোমার ঘরে অগ্নির দংশন।

 

পাঁচ

শীতের শীর্ণতা হয়ে কুয়াশা চাদরে
বন্দীত্ব বরণ করে ভুলেছো আমায়

দ্বিধার প্রান্তরে থেকে রক্তাক্ত গলায়
তবুতো ডাকছি প্রিয় নামের উপমা

সংসার সীমান্তে শতো বাঁধার প্রাচীরে
নিভৃতে ভেঙেছে লাজ সবুজ লতার

মেঘের দুয়ারে কেউ দাড়িয়ে ক্ষনেক
জলের ভেলায় ভেজে আগুন বৃষ্টিতে

এমন বিরান ভূমি করেছো হৃদয়
ইচ্ছের প্রশাখা পোড়ে বিষের ছোবলে।

শারমিন সুলতানা রীনা। কবি ও ছড়াকার। জন্ম বাংলাদেশের গোপালগঞ্জ জেলায়, বর্তমান নিবাস ঢাকা। প্রকাশিত বই: 'মুজিব মানে বাংলাদেশ' (ছড়া, ২০২১), 'মা এক পৃথিবী' ((ছড়া, ২০১২), 'আমার কেবল ইচ্ছে করে' (ছড়া, ২০১৬), 'চড়ুই পাখির ছানা' (ছড়া, ২০১৫), 'বাবা আমার বাবা' (ছড়া,...

এই বিভাগের অন্যান্য লেখাসমূহ

প্রতিভাস

প্রতিভাস

স্পষ্টতা অন্ধকারের মতো স্পষ্টতা আলোর মধ্যগগনে নেই। উত্তাপে ঝলসে যাওয়া চোখে শীতলপাটি বিছিয়ে দেয় রাত…..

চিঠি

ক্ষোভ রোদের দোকানি হয়ে, ছুঁয়ে গ্যাছি দূর পরবাস আলোর ক্রেতারা দেখে, শূন্য ঝুলি খালি সর্বনাশ।…..