সঞ্চয় সুমনের পাঁচটি কবিতা

সঞ্চয় সুমন
কবিতা
Bengali
সঞ্চয় সুমনের পাঁচটি কবিতা

বিদ্রুপ এসেছে গ্রাস করতে
হিংসের গাছ গান গায়
আগুনের শোকে,
জল চেয়ে স্বপ্নের যমুনা
ঢুকেছে আহ্লাদের নাভিমূলে।
লোহা গলানো রক্ত স্রোত
অল্পে খুশি হয়ে
বিষয়ের প্রিয় বিষাদ দাও
এক নিঃশ্বাসে শুষে নেব
অবশ করা অবসাদ দাও
নির্দ্বিধায় মেনে নেব,
শুধু করুণার মগজে থাক
অভিশাপ মাখা সন্ধ্যা ।

 

দুই.

অন্যান্য আরো কিছুর মত
অভিযোগ গুলোও গেঁথে আছে
নিষিদ্ধ সময়ের গভীরে,
পলকে গুটিয়ে অমিমাংসিত পথ
চোখ কথা বলে।
উদ্দেশ্যহীন ভ্রমনে দিন কখন ঘুমায়
– নক্ষত্র জাগে, জানেনা দূরত্ব,
জপ মালা কাঁদলে অবস হাতে
হৃৎপিণ্ড ভরে যায় বিষাক্ত নিঃশ্বাসে ।

 

তিন.

লাভায় ঢাকা মৃতদেহ
– উপড়ানো গাছ
বন্ধ্যা মাটির মায়া ছুঁয়ে
দূরের সন্ধ্যাকে জ্বলবার
প্রেরণা ছুড়ে দিয়ে
উত্তরহীন বাতাসকে কাঁদিয়ে
ওৎ পেতে থাকা
মিথ্যার শরীরে
অসংবৃত সময়’কে পাওনি
দুষ্ট স্বপ্ন ?

আকাশ দেখেনি প্রস্থান
নর্তকী নাচ ভুলেছে
পাথর ছুঁয়ে..
বজ্রের চঞ্চলতায় জ্বলে
থমকানো নিশ্বাস
অস্থিরতার উপস্থিতীতে
বিস্ত্রস্ততা ফুঁসে,
প্রেমের শেষ বিন্দু
তুমি কি খুঁজো
মোহ – মায়া – কামে?

চার.

বিদায়ি হাওয়া ছুঁয়েছে
এখন স্থির থাকা যাবেনা..
আগুনের ব্যথা খুঁজতে আমি
সন্ধ্যার ভেতর ঢুকবো
অনেকেই কবিতা লিখবে
রাত জেগে থাকবে একা ,
শুশ্রূষাহীন ভাবনা ফিরে গেলে
দূর থেকেও দূরে
স্বপ্নের নিহত হওয়ার সংবাদে
অনুভূতি লিখবে আমার বন্ধুরা…

 

পাঁচ.

ধ্যান ভাঙ্গাবার ধ্যানে স্পষ্ট নীল ঘুমে
কংকাল না হৃদয় কে প্রতিরোধ করে?
আরাধনা মন্ত্রে সম্পূর্ণ করে সমস্ত ভুল
স্বতোৎসার শ্লোক ; গৃহত্যাগী জ্যোৎস্নায়
– সাহসের মত শান্ত অন্ধকারে
নিয়তি বদল করার আবদার থেকে
ছুটি নিয়ে, অধঃপতনের গাঢ় শব্দে
শরীরের দোষে মোহিত হয়ে
সংস্কারের মঞ্চে খন্ডকালীন সভায়
সমস্ত ঘৃণার প্রতি প্রেম ছুঁড়ে দেব
আবেগী শব্দমালায়।

সঞ্চয় সুমন। কবি। জন্ম ও বেড়ে উঠা বাংলাদেশের ঢাকায়। ব্যক্তিগতভাবে সুর-সঙ্গীতে ডুবে থাকতে পছন্দ করেন, ছবি আঁকেন; ইতোমধ্যে কয়েকটি একক ও যৌথ চিত্র প্রদর্শনীও করেছেন। প্রকাশিত বই: 'গুপ্ত সমরে মুক্তির ঠিকানা' (কাব্যগ্রন্থ), ২০১৬ ঢাকা, 'নষ্ট জীবের আবেগ' (যৌথ কাব্যগ্রন্থ), ২০১৮...

এই বিভাগের অন্যান্য লেখাসমূহ

বেশরম

বেশরম

বেশরম কি কঠিন ছিলো, ডুব সাঁতারের রুদ্ধ দম তোমাকে ভুলেছি ঠিক এক বেশরম- আবার পড়েছি…..

তোমার জন্য

তোমার জন্য

পাষাণের প্রেম বিকট স্তব্ধতায় সুনিপুণ সীমানা প্রাচীর তুলেছ, বেসামাল ভালোবাসার জাগতিক জায়নামাজে। প্রার্থনার গতিরোধ করো…..