সঞ্জীবনী

আশা মন্ডল
কবিতা
Bengali
সঞ্জীবনী

তুমিময় প্রেম

নিরালায় সাঁঝে নেমে আসা কত ঝড়,
হারানো আঁচলে এঁকে যায় নোনা স্বাদ;
কোণঠাসা ঘরে অভিমানী সেই রাতে,
জ্যোৎস্নার গান গায় এক ফালি চাঁদ।

নিঃশ্বাসে বাঁধা স্বপ্নীল সীমানায়,
দুহাত বাড়িয়ে ধরি স্পর্ধার দ্বীপ ;
মেঘলা আকাশে তুমি প্রশ্রয় সুর,
সাদা,কালো মেঘে বুনি মিলনের গীত।

বন্ধ দুচোখে আঁধারের সাথে মিশে,
ছেড়ে আসা পথে খুঁজি ফাগুনের গলি;
নিভে যাওয়া যুগে ছায়ার সেতুকে ধরে,
আজও তোমাকেই ‘প্রেম’ বলে মেনে চলি।

 

উজ্জীবন

কালবৈশাখীর আঁচলে লেগে থাকা মেঘরাশির আঙিনা পেরিয়ে,
বর্ষাস্নাত আকাশটা যখন হাত বাড়িয়ে দেয় পৃথিবীর দিকে,
চোখের কোণায় অনন্ত মোহনার শীতল নদী বয়ে যায় উষ্ণ সবুজাভ মায়ায়;
প্রকৃতির শিরা উপশিরায় ঝরে পড়া কাব‍্যকবিতার ইতিহাস,
খুঁজে নেয় কবির কলমের ঠিকানা।
অবচেতন মনে জেগে ওঠে বিরহের আবরণ;
পরিযায়ী হয়ে ওড়ে আবছা শহরের ছাদে!
জোনাকির মত ফুটে থাকা আলোয়,
সভ‍্যতার চাষ দূর থেকে হাতছানি দেয় বার বার;
কাছে থাকার প্রতি আবেদন অণুতে জড়িয়ে থাকে এক আকাশ সমুদ্রের প্রাণ!…

 

সঞ্জীবনী

তোমায় নিয়ে লেখা কবিতা,
ডায়েরীতে রাখা শুকনো গোলাপ সাথে,
বেঁচে ওঠে আজও,
প্রতিটি রাতে,প্রতি প্রভাতে!..
জীবন্ত তারা,নয়নতারার মুক্তাকণায়,
প্রদীপ শিখার আলোর বলয়ে,
সন্ধ‍্যাবেলায়;
খামখেয়ালী দুচোখ ভেজায় স্মৃতির ঘাতে!
তোমায় নিয়ে লেখা কবিতা,
ডায়েরীতে রাখা শুকনো গোলাপ সাথে,
বেঁচে ওঠে আজও,
প্রতিটি রাতে,প্রতি প্রভাতে!..

বদলে গেছে আবেগ ভাষা,সোহাগ ঋতু ;
ঘুমের পাড়ে জাগে পলকের শূণ‍্য সেতু!
অভিযোজনের সূত্র ধরে অপেক্ষাতে,
তোমায় নিয়ে লেখা কবিতা,
ডায়েরীতে রাখা শুকনো গোলাপ সাথে,
বেঁচে ওঠে আজও,
প্রতিটি রাতে প্রতি প্রভাতে!..

আকাশ মেঝেতে আঁকা তারকার ছবি আয়নায়,
সপ্তর্ষি,কালপুরুষের হিম স্থিরতায়,
তোমার ছায়ায় আবৃত আমি,
নেশাগ্রস্ত জ‍্যোৎস্নাতে;
তোমায় নিয়ে লেখা কবিতা,
ডায়েরীতে রাখা শুকনো গোলাপ সাথে,
বেঁচে ওঠে আজও,
প্রতিটি রাতে,প্রতি প্রভাতে!..

 

অব‍্যক্ত

কিছু সম্পর্ক বাতাসের উপলব্ধিতে বেঁচে থাকে;
ধরা ছোঁয়ার বাইরে ভাসমান গন্ধে মিশে
চেতনাকে নাড়া দিয়ে বলে-
“আমি আছি!”
উদ্দেশ‍্য,ঠিকানার অঙ্ক থেকে শত ক্রোশ দূরে,
শুধু এক ভালো লাগা অনুভূতি…
রক্ত,মজ্জার শরীরে
আবেগী প্রতিশ্রুতি কবিতা লেখে অব‍্যক্ত কথায়!..
লাল,নীল ভালোবাসার দেশে কিছু স্নেহ,কিছু ভালো লাগা ঠিক যেন মরীচিকা মায়া!…
দীর্ঘদিন দূরত্বটাকে আঁকড়ে ধরে যে বেঁচে থাকে,
দূরত্বে ‘সান্নিধ‍্যে’র স্বাদ পেয়ে!

আশা মন্ডল। কবি। জন্ম ১৯৮২ সালে, ভারতের পশ্চিমবঙ্গরাজ্যের কলকাতায়। লেখাপড়া করেছেন রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলায় এম,এ। এরপর এডুকেশন বিষয়ে এম,এ করছেন। লেখালিখির পাশাপাশি তিনি আবৃত্তি করেন ও ছবি আঁকেন। লেখালিখি করলেও এখনো তাঁর কোনো বই প্রকাশ হয় নি।

এই বিভাগের অন্যান্য লেখাসমূহ